Logo
শিরোনাম :
চিলমারীতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পালিত হচ্ছে দুর্গাপূজা নারীর নিজের বাড়ি কই মিথ্যা ধর্ষণ প্রচেষ্টা মামলার প্রতিবাদে গ্রামবাসীর মানববন্ধন অষ্টমীতে সদরের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ কলারোয়ার মানিকনগর গ্রামবাসীকে হয়রানীর প্রতিবাদে গ্রামবাসীর প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন অষ্টমীতে সদরের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ বগুড়ার আদমদীঘিতে ৬০ কেজি গাঁজা উদ্ধারসহ তিন মাদককারবারীকে গ্রেপ্তার সহ পাজারো গাড়ি জব্দ শারদীয় দূর্গা উৎসব উপলক্ষ্যে শার্শা উপজেলার বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন খুলনার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এম এ সালাম আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সাংবাদিক সংস্থার উপদেষ্টা নির্বাচিত বেনাপোলে ভারতীয় মোবাইল ও মোটরসাইকেল সহ দুই পাচারকারী আটক

৩৫ নম্বর ওয়ার্ড: মাদকমুক্ত ওয়ার্ড গড়তে চান সম্ভাব্য প্রার্থীরা

মাদকমুক্ত ওয়ার্ড গড়তে চান ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা। ফুটপাত দখলমুক্ত, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদসহ সৌন্দর্য বর্ধন, পরিকল্পিত উন্নত রাস্তাঘাট নির্মাণ করতে চান তারা।

এ ছাড়া, জলাবদ্ধতা নিরসন, মাদকমুক্ত সমাজ গঠন, পরিকল্পিত আবাসন ও শিক্ষাবান্ধব ওয়ার্ড গড়তে চান কয়েকজন সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থী।

ডিএনসিসি অঞ্চল ০৩ আওতাধীন প্রায় ৫০ হাজার ভোটার অধ্যুষিত ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড। এ ওয়ার্ডে হোল্ডিং রয়েছে ৪২০০। বড় মগবাজার, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন রোড, পশ্চিম মালিবাগ, মধ্য পেয়ারাবাগ, গ্রিনওয়ে, উত্তর নয়াটোলা নিয়ে ডিএনসিসির ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড। এর আয়তন ১.১৪৯ বর্গকিলোমিটার।সংসদীয় আসন ঢাকা-১২।

ডিএনসিসির ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন- ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বর্তমান কাউন্সিলর মোক্তার সরদার, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সহিদুর রহমান সহিদ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. লুৎফর রহমান, রমনা-হাতিরঝিল থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজী আবুল কাসেম, রমনা-হাতিরঝিল থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শেখ আমির হোসেন।

ওয়ার্ডের বাংলামোটর থেকে ইস্পাহানি পর্যন্ত রাস্তার ফুটপাত দখল করে বসে দোকান। এছাড়াও ওয়ার্ডটির কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠান করতে না পারায় নিু ও মধ্যবিত্তদের বেলায় বিয়েসহ সামাজিক অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত খরচ বহন করতে হচ্ছে। খেলার মাঠ, ব্যায়ামাগার, পাঠাগারসহ নাগরিকদের বিনোদনের কোনো ব্যবস্থা নেই।

সামান্য বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা হয়। অনেক স্থানে মশার উপদ্রব অনেক বেশি। এসব সমস্যা সমাধান করতে চান সম্ভাব্য প্রার্থীরা। অলিগলির ভেতর মাদকের প্রভাব থাকায় ওয়ার্ডটিতে মাদক নির্মূলে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন তারা।

হাতিরঝিলকেন্দ্রিক কিশোর গ্যাং মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। এরা দলে দলে একত্র হয়ে নানা অপরাধে যুক্ত হচ্ছে। খেলার মাঠ না থাকায় অনেক শিশু-কিশোর রাস্তায় খেলতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। কয়েকটি স্থানে খোলা জায়গায় ফেলা হচ্ছে ময়লা।

বর্তমান কাউন্সিলর মোক্তার সরদার বলেন, আমি দায়িত্ব নেয়ার পর অনেক উন্নয়নকাজ করেছি। এ ওয়ার্ডে মূল সমস্যা হচ্ছে এখানের সব রাস্তাঘাট কেটে রাখা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এ সমস্যা থাকলেও সমাধানে কোনো উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না।

আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সহায়তায় সব ধরনের উন্নয়নকাজ করে যাচ্ছি। নির্বাচিত হলে তা অব্যাহত থাকবে। ফুটপাত ও মাদকের যে সমস্যা রয়েছে তা চাইলে পুলিশ নির্মূল করতে পারে।

ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সহিদুর রহমান সহিদ বলেন, আমি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। তৃণমূল থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করে রাজনীতি করে আসছি। অনেক নির্যাতনের শিকার হয়েছি। রাস্তাঘাটের অনেক সমস্যা রয়েছে, মাদক কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আছে, পুরো দমন হয়নি।

এ ওয়ার্ডের মানুষের জন্য সব সময়ই কাজ করে যাচ্ছি। আমি নির্বাচিত হলে একটি কমিউনিটি সেন্টার তৈরিসহ সব প্রকার নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করব।

ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. লুৎফর রহমান বলেন, দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তা হলে নির্বাচন করব। আমাকে না দেয়া হলেও দল যাকে মনোনয়ন দেয় তার পক্ষে কাজ করব।

এখানে অনেক গরিব মানুষের বসবাস, যে কোনো সমস্যায় আমি তাদের পাশে দাঁড়াই। আশা করি জনগণ যোগ্য একজন ব্যক্তিকে নির্বাচিত করবে। তাহলে মানুষ নাগরিকসেবা থেকে বঞ্চিত হবে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!