Logo

ববির দুই শিক্ষার্থী পেল জেন্ডার জাস্টিস ফেলোশিপ

শাহিন হাওলাদার স্টাফ রিপোর্টার : বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মোঃ ছাদেকুল আরেফিন বলেছেন, সমাজে বিরাজমান নারী ও শিশুদের প্রতি জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে পুরুষদের দৃষ্টিভঙ্গির ইতিবাচক পরিবর্তন দরকার। নারী ও পুরুষের সমতা অর্জনে ক্ষমতায়নও খুব জরুরি। নেতিবাচক পৌরষ দেখানো বন্ধ করতে পুরুষদের উদ্যোগী হতে হবে। ২৪ ডিসেম্বর বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কক্ষে অনুষ্ঠিত প্রতীকি যুব সংসদ প্রবর্তিত জেন্ডার জাস্টিস বিষয়ক এক ফেলোশিপের চেক বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক ও এনগেজ মেন অ্যান্ড বয়েজ নেটওয়ার্কের সহযোগিতায় এই ফেলোশিপ প্রদান করা হয়। জেন্ডার জাস্টিস ফেলোশিপের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সমীক্ষা পরিচালনা করে নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে পুরুষ ও বালকদের ভূমিকা নিরুপণ করে প্রয়োজনীয় কর্মসূচির সুপারিশ রেখে প্রতিবেদন প্রকাশ করবেন। যাচাই বাছাই কমিটির নির্বাচনে ফেলোশিপপ্রাপ্তরা হলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ আরিফুল ইসলাম এবং মৃত্তিকা ও পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী লিজা আক্তার পাপিয়া। প্রত্যেক ফেলো ৬ মাস মেয়াদী তাদের মাঠকর্ম ও সমীক্ষার জন্য এককালীন ৪১,৩৩৩ টাকা করে বৃত্তি পাবেন। তাদের সঙ্গে কাজ করবে বিশ্ববিদ্যালয়ের আরও কয়েকজন শিক্ষার্থী।

ফেলোশিপ প্রোগ্রামের জুরি বোর্ডে ছিলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যন ও সহকারী অধ্যাপক ড. তারেক মাহমুদ আবীর ও ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) সহকারী পরিচালক এস. এম. আরাফাত শাহরিয়ার। প্রাপ্ত আবেদন অনেক যাচাই-বাছাই ও সাক্ষাৎকার গ্রহণের মধ্য দিয়ে ফেলোশিপের জন্য তাদের মনোনয়ন দেওয়া হয়।

ফেলোশিপের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বরিশাল বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি আরিফ হোসেন, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যন ও সহকারী অধ্যাপক ড. তারেক মাহমুদ আবীর, ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) সহকারী পরিচালক এস. এম. আরাফাত শাহরিয়ার, সহকারী রেজিস্টার বাহাউদ্দিন গোলাপ, প্রতীকি যুব সংসদের চেয়ারপারসন মোঃ আমিনুল ইসলাম (ফিরোজ মোস্তফা), নির্বাহী প্রধান সোহানুর রহমানসহ ফেলোশিপপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা’ শাহিন হাওলাদার উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে উপাচার্য ড. মোঃ ছাদেকুল আরেফিন নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে ফেলোশিপ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে গবেষণাকর্মে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগ বাড়ানোর আহবান জানান। গবেষণা ও সমীক্ষা কার্যক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের বেশি বেশি সম্পৃক্ত করা গেলে যেমনি শিক্ষার্থীদের বাস্তবিক জ্ঞান বৃদ্ধি পাবে এবং তাদের গবেষণালব্ধ তথ্য দেশের নীতি সংস্কার ও জনসচেতনতা তৈরিতে ব্যাপক অবদান রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উদ্যোগী সংস্থা প্রতিকী যুব সংসদের নির্বাহী প্রধান সোহানুর রহমান বলেন, শুধু এককেন্দ্রিক উদ্যেগের দ্বারা নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। এর জন্য দরকার সমন্বিত উদ্যোগ। প্রজন্ম সমতা অর্জণ করতে হলে নারী নির্যাতন প্রতিরোধে প্রয়োজন পুরুষ ও কিশোরের সক্রিয় অংশগ্রহণ। শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরুষ ও পৌরষ বিষয়ে গবেষণাকে উৎসাহিত করাই এই ফেলোশিপ প্রদানের মুখ্য উদ্দেশ্য


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!