Logo

লামায় নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে কাজ করছেন নারীনেত্রী ফাতেমা পারুল

জাহিদ হাসান,বিশেষ প্রতিনিধি।।

বান্দরবানের লামায় নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে কাজ করছেন নারীনেত্রী ও বান্দরবান জেলা পরিষদের সদস্য ফাতেমা পারুল। তিনি অবহেলিত দরিদ্র নারীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ২০০৯ সালের ১ জানুয়ারি নিজ বাড়িতে প্রতিষ্ঠা করেন ‘নব জাগরণ মহিলা উন্নয়ন সমিতি’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। মাত্র ১৫ জন নারী নিয়ে শুরু করেন সংগঠনের কার্যক্রম। বর্তমানে দেড় শতাধিক নারী এ সংগঠনের সদস্য।নারীদের ভাগ্যোন্নয়নে ‘নব জাগরণ মহিলা উন্নয়ন সমিতি’ মাধ্যমে অসহায়, দরিদ্র, স্বামী পরিত্যক্ত, বিধবা, অস্বচ্ছল পরিবারের নারীদের স্বপ্নও দেখান তিনি। দুই মাসের (৭জনুয়ারি২০২০ইং) ট্রেনিং শেষে বান্দরবান জেলা পরিষদের সদদস্য ফাতেমা পারুল,সি,আই,ডি,পি,জেলা হিসাব রক্ষক মোঃ অজিউল্যাহ ও সমন্বয় কর্মকর্তা মোঃ আবদুল কাদের ভূউয়া ভাতা তুলে দেন।মুক্তা বেগম , রুনা আক্তার, নুর জাহান আক্তার , ফাতেমা আক্তার, জাহেদা বেগম এবং কলেজ ছাত্রী কোহিনুর আক্তারকে।এখানে সেলাই, আর কিছু পুতির তৈরি টিস্যু বক্স, নকশি কাঁথা, ব্লক-বাটিক, বাঁশ-বেত ও বিভিন্ন ফুলের টপ তৈরিকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়ে এ কাজ করে এখন সংসার চালায়। স্বামীর পাশাপাশি ছেলেমেয়েদের পড়া লেখার খরচও যোগান দেন প্রশিক্ষিত এ নারীরা।বর্তমানে তিনি বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের একজন সদস্য। রাজনৈতিক জীবনে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের লামা উপজেলা সভানেত্রী। ২০১৭ সালে অর্থনৈতিকভাবে সফল নারী হওয়ায় উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদফতর তাকে ‘জয়িতা’ সম্মাননা প্রদান করে।সাংসারিক কাজের ফাঁকে ফাঁকে আশপাশের অবহেলিত দরিদ্র নারীদের নিয়ে কিছু একটা করার কথা ভাবতেন ফাতেমা পারুর। তখন থেকে বিভিন্নভাবে অসহায় নারীদের সহায়তাও করতেন তিনি। সাংবাদিকদের জানান,নব জাগরণ মহিলা উন্নয়ন সমিতির উদ্যোগে বাল্য বিবাহ রোধ, নারী নির্যাতন, যৌতুক প্রথা, শিশু পাচার রোধে সচেতনতামূলক সভা সেমিনারসহ জাতীয় দিবসের মধ্যে নারী দিবসসহ বিভিন্ন দিবস পালন করে আসছে যথাযথভাবে। এছাড়া এলাকার অবহেলিত দরিদ্র নারীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ইতোমধ্যে এই সমিতি বেশ কয়েক ধাপে দু শতাধিক বেকার নারীকে সেলাইসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দেয়। তাদের মধ্যে কিছু নারী সেলাই, আর কিছু পুতির তৈরি টিস্যু বক্স, নকশি কাঁথা, ব্লক-বাটিক, বাঁশ-বেত ও বিভিন্ন ফুলের টপ তৈরিকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়ে এ কাজ করে এখন সংসার চালায়। স্বামীর পাশাপাশি ছেলেমেয়েদের পড়া লেখার খরচও যোগান দেন প্রশিক্ষিত এ নারীরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!