শিরোনাম :
শার্শায় ফ্রী খাবার বাড়ীতে খাবার খেল তিন শতাধিক মানুষ জিএম ইউনুস আলীকে জেলা দলিল লেখক সমিতির সদস্য মনোনিত করায় জেলার সভাপতি ও সম্পাদককে অভিনন্দন ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্ত থেকে ৫ নারী-পুরুষ আটক মহেশখালী জেটিঘাটে বিনা রশিদে টোল আদায়ের অভিযোগ শার্শায় দুই সন্তানের জননীর অত্নহত্যা ফরাজগন্জ ৯নং মহিষখালী তে পুনরায় মেম্বার প্রার্থী-ইদ্রিস মাঝি চট্রগ্রামের মিরসরাই অলিনগরে গলায় ফাঁস দিয়ে তরুনীর আত্মহত্যা।। পরকীয়া করতে গিয়ে গণধোলাই এর অভিযোগ : বিবস্ত্র অবস্থায় পালালেন সাবেক ইউপি সদস্য বিএফএসএফ অ-১৪ একাডেমি কাপ টুনামেন্টের জন্য ওয়ারিয়র স্পোর্টস একাডেমির প্রাথমিক খেলোয়াড় বাছাই আশাশুনিতে মনসা ও বিশ্বকর্মা পূজা অনুষ্ঠিত
শার্শার নাভারণে রুগ্ন গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগ

শার্শার নাভারণে রুগ্ন গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের শার্শা উপজেলার নাভারণ বাজারে রুগ্ন গরুর মাংস বিক্রির সময় মাংস ব্যবসায়ী সোহেল রানাকে হাতে-নাতে আটক করে ৫০হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। আর খাদ্যের অনুপযোগী আটককৃত মাংস তাৎক্ষনিক কেরাসিন ঢেলে নষ্ট করার পর মাটিতে পুতে ফেলা হয়েছে বলে জানা গেছে। মাংস ব্যবসায়ী সোহেল রানা শার্শা উপজেলার কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের আতিয়ার রহমানের ছেলে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে নাভারণ বাজারের মাংস পট্টিতে সোহেল রানার মাংসের দোকানে রুগ্ন গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শার্শা উপজেলার সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সোহারাব হোসেন, ইউপি সদস্য জুলফিকর আলী জুলু, গ্রাম পুলিশ তোবারক হোসেন ও সাংবাদিক সেলিম রেজা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সোহেল রানার মাংসের দোকানে রুগ্ন গরুর মাংস বিক্রির প্রমাণ পেয়ে উপস্থিত জনসাধারণের সম্মুখে ওজন স্কেলসহ দোকানের সমস্ত মাংস জব্দ করে

এবং খাদ্যের অনুপযোগী মাংস বিক্রির অপরাধে ব্যবসায়ী সোহেল রানাকে ৫০হাজার টাকা জরিমানা করে। খাদ্যের অনুপযোগী আটককৃত মাংস তাৎক্ষনিক কেরাসিন ঢেলে নষ্ট করার পর ইউপি চত্বরের পরিত্যক্ত মাটিতে পুতে ফেলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য জুলফিকর আলী জুলু জানান, নাভারণ বাজারের মাংস পট্টির সোহেল রানার মাংসের দোকানে রুগ্ন গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার মন্ডলকে জানালে তিনি ইউপি চেয়ারম্যান সোহারাব হোসেনকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলেন।

জনসাধারণের সম্মুখে ওজন স্কেলসহ দোকানের সমস্ত মাংস জব্দ করার কথা স্বীকার করলেও মাংস ব্যবসায়ী সোহেল রানাকে ৫০হাজার টাকা জরিমানা করার কথা অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান সোহারাব হোসেনের কাছে জানতে চাইলে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে তিনি বলেন, জব্দ কৃত মাংশ তাৎক্ষনিক কেরাসিন ঢেলে নষ্ট করা হয়েছে।

উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর শেফালি খাতুনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এবিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান সোহারাব হোসেন বা জুলু মেম্বার আমাকে কিছুই জানায়নি তবে পরে বিসয়টি আমি শুনেছি। #

ভালো লাগলে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © bbsnews24 2020
Design BY NewsTheme
error: Content is protected !!