পুলিশ সদস্য তার বোনের বাসায় কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণ

পুলিশ সদস্য তার বোনের বাসায় কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণ

এক কলেজছাত্রীকে ধ’র্ষণের অ’ভিযোগে পু’লিশ কনস্টেবল ও পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজে’লার বয়াতীর হাট গ্রামের খালেক ঘরামীর ছেলে সাহেব আলী ঘরামীর বি’রুদ্ধে মা’মলা হয়েছে। ওই ছাত্রী গত ২৩ এপ্রিল মঙ্গলবার রাতে মঠবাড়িয়া থা*নায় এ মা’মলা করেন। ধ’র্ষণে সহায়তার অ’প’রাধে সাহেব আলীর বড় বোন বিলাসী বেগমকেও আ’সামি করা হয়েছে। পু’লিশ বুধবার বিলাসী বেগমকে গ্রে’প্তার করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পিরোজপুরের একটি কলেজের অনার্স পড়ুয়া ওই ছাত্রীর সঙ্গে এক বছর আগে পরিচয় হয় ঢাকার কেরানীগঞ্জ মডেল থা*নার কনস্টেবল সাহেব আলীর। এরপর থেকে তাদের মধ্যে প্রেমের স’ম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্প্রতি সাহেব আলী ছুটিতে মঠবাড়িয়ায় এসে ফুসলিয়ে পৌর শহরে তার বড় বোনের বাসায় নিয়ে মেয়েটিকে ধ’র্ষণ করে।

এরপর ওই ছাত্রী কয়েকদিন ধ’রে বিয়ের জন্য চা’প দিলে সাহেব আলী এতে অটস্বীকৃতি জানায়। পরে ওই ছাত্রী সাহেব আলীর বাড়িতে অবস্থান নিলে অ’ভিযুক্ত কনস্টেবলের পক্ষ নিয়ে মঠবাড়িয়া থা*না পু’লিশের এসআই হেমায়েত হোসেন খান সেখান থেকে তাকে উ’দ্ধার করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। ২৩ এপ্রিল মঙ্গলবার মেয়েটি ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহ’ত্যার চেষ্টা করেন। পরে তাকে উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এসআই হেমায়েত হোসেন খান মুঠোফোনে জানান, পরিস্থিতি ঘোলাটে হতে পারে এমন মনে করে ওই ছাত্রীকে সেখান থেকে উ’দ্ধার করে তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

মঠবাড়িয়া থা*নার ওসি সৈয়দ আব্দুল্লাহ বলেন, মা’মলার এক আ’সামি বিলাসী বেগমকে গ্রে’প্তার করে আ’দালতে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার ওই কলেজছাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পিরোজপুর সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে পাঠানো হবে।

তবে আমি একটি মা’মলার স্বাক্ষী দিতে কিশোরগঞ্জ যাওয়ায় এর আগে কি হয়েছে তা জানি না।
কুমিল্লার বার্তা

ভালো লাগলে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © bbsnews24 2020
Design BY NewsTheme
error: Content is protected !!