Logo
শিরোনাম :
কণ্ঠশিল্পী বেবি নাজনীন ও রিজিয়া পারভীন করোনায় আক্রান্ত সাবেক আবহানী লিমিটেড গোল রক্ষক মোহাম্মদ আলীর ভাই জিন্নাত এর মৃত্যুতে ওয়াসিকা এমপি-এর শোক আশাশুনিতে মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা আদায় চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুঃস্থদের চাল মজুদ ও বিক্রির দায়ে চালসহ আটক ১ মধুপুরে পদবি পরিবর্তন ও বেতন গ্রেড উন্নীতকরণের দাবীতে পালিত হচ্ছে পূর্নদিবস কর্মবিরতি পাবনা জেলার শ্রেষ্ঠ অস্ত্র উদ্বারকারী পুলিশ অফিসার এস আই অসিত কুমার বাকেরগঞ্জে পৌর নির্বাচনী শো-ডাউন কেশবপুর পৌর মেয়র রফিকুল ইসলামের গণসংযোগ অব্যাহত চুনারুঘাটে অস্ত্রের আঘাতে ক্যাবল টিভি নেটওয়ার্ক লোকজন আহত পিরোজপুরে স্বামীকে মারধরের ঘটনায় মামলা করায় স্ত্রীকে হুমকি, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

কুষ্টিয়া দৌলতপুর বাজারে কমছে সবজির দাম।

সজল/রুমন কুষ্টিয়াঃ
বৃষ্টির কারণে গত সপ্তাহে পেঁয়াজ ও শীতের সবজির দাম যেন পাল্লা দিয়ে বাড়ছিল। আমদানি বেড়ে যাওয়ায় কমছে শীতকালীন সবজির দাম। কিন্তু অপরিবর্তিত রয়েছে পেঁয়াজের দাম। একই সঙ্গে বেড়ে যাওয়া চাল, মাংস, ডিম, আটা ও মাছের দামও কমেনি।

বৃহঃষ্পতিবার (১৬ জানুয়ারি)বড়গাংদিয়া, শ্যামপুর, কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা যায়, শীতের সবজির দাম কিছুটা কমলেও পেঁয়াজের বাজারের রয়েছে অস্থিরতা। গত সপ্তাহের তুলনায় দেশি পেঁয়াজের দাম কমেছে সাইজ ও মান ভেদে কিছুটা দাম পরেছে আর দুই একটি সবজি বাদে প্রায় সব সবজিরই দাম কমেছে কেজি প্রতি ৫ থেকে ১০ শ্যামপুর বাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ সাইজ ভেদে বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৫০ টাকা,

পেঁয়াজের ব্যবসাটা খুব সংকটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে বলেন আড়তাররা‘গতকাল যে দামে আমরা পেঁয়াজ কিনেছে আজ
সেই দামেই বাজারে বিক্রি করছে। পেঁয়াজের দাম বাড়তি থাকলে ব্যবসা করে শান্তি নাই। গতকাল যে বাজারদর আছি আজ তার থেকে কেজি প্রতি চার টাকা লস দিয়ে বিক্রি করছে। আগামীকাল যে আবার বাজার কেমন হবে বলা যাচ্ছে না। খুব অনিশ্চয়তার মধ্যে পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা।’

এদিকে, খুচরা বাজারে প্রতি কেজি শিম ১৫-২০টাকা, মুলা ৫-১০টাকা, বেগুন ২০-২৫ টাকা, নতুন আলু ২৫ টাকা, পেঁপে ১৫ টাকা, গাজর
২০টাকা, শসা ৩০ টাকা, কাঁচামরিচ ৪০ টাকা, টমেটো ২০ টাকা, গট কচু ৩০ টাকা দরে। এছাড়া প্রতি পিস লাউ বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা, ফুলকপি ২০ টাকা, বাঁধাকপি ২০টাকা, মিষ্টি কুমড়া কেজি প্রতি ২০ টাকা এবং মৌসুমি শাক আঁটি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৫ টাকা দরে।

ক্রেতা ও বিক্রেতারা বলছেন, সবজির দাম কিছুটা কমছে। তবে শীতকাল হিসেবে সবজির দাম আরও কম থাকার কথা।

মসলার বাজারে ঘুরে দেখা যায়, প্রতি কেজি চায়না রসুন ১৫০ টাকা, ও থাইল্যান্ড আদা ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

চালের বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতি কেজি আটাশ চাল ৩৫ টাকা। মিনিকেট ৪৬-৪৭ টাকায় এবং পোলাওয়ের চাল ৯০-১০৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

মাছের বাজারে তেলাপিয়া ১০০-১২০ টাকা রুই ১৮০-২৫০ টাকা, ইলিশ মাছ সাইজ ভেদে ৮০০ থেকে ১২০০ টাকা, কেজি, কাতল মাছ ২০০-২৫০ টাকা গিলাসকাপ ১০০-১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ডজন প্রতি ডিম বিক্রি হচ্ছে ৯৬ টাকায়, দেশি মরগি ৪৫০ টাকা, সাদা কক ২১০ টাকায়, ব্রয়লার ১১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে

বাজারের বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আবহাওয়া যত দ্রুত ভালো হবে, বাজারে পণ্যের আমদানি তত বাড়বে। পণ্যের আমদানি বাড়লে বিশেষ করে সবজির আমদানি বাড়লে দাম খুব দ্রুতই কমে যাবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!