ঘুমধুমে কথিত যুবদল নেতার নির্মমতার শিকার স্ত্রী,তালাক দিয়ে এক কাপড়ে ঘরছাড়া প্রাননাশের হুমকি

ঘুমধুমে কথিত যুবদল নেতার নির্মমতার শিকার স্ত্রী,তালাক দিয়ে এক কাপড়ে ঘরছাড়া প্রাননাশের হুমকি

নিজস্ব সংবাদদাতা, উখিয়া,কক্সবাজারঃ

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে স্বঘোষিত ইউনিয়ন যুবদল সাধারণ সম্পাদক জহির আহমদের পৈশাচিক নির্যাতনের শিকারে জানে বাঁচতে ঘরছাড়া হয়েছে স্ত্রী।স্বামীর নির্যাতনে রক্তাক্ত এনজিওকর্মী স্ত্রী বর্তমানে পৈতৃক বাড়িতে গুরুতর জখমাবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।এ ব্যাপারে নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় সাধারণ ডায়েরি করে, আদালতে মামলার প্রক্রিয়া চালাচ্ছে ভুক্তভোগী পরিবার।
নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় লিপিবদ্ধ করা সাধারণ ডায়েরি ও ভুক্তভোগী ঘুমধুম ইউনিয়নের খিজারীঘোনার আবদুল করিমে কন্যা,পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বাস্তবায়নাধীন টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের ঘুমধুমের ১৭ নং ক্লাস্টারের মাঠ সংগঠক(এফও) শামিমা সোলতানা রেহেনা জানান,বিগত ১৩ বছর পূর্বে একই এলাকার সৌদি আরব প্রবাসী হাজী ছৈয়দ আলমের ছেলে তৎকালীন প্রবাসী জহির আহমদের সহিত রেজিষ্ট্রেশন কাবিন নামা সম্পাদন ও ইসলামী শরীয়ত মতে বিয়ে হয়।বিয়ের পর বেশ কয়েক বছর দাম্পত্য জীবন সুখের ছিল।

জিবিকার তাগিদে জহির আহমদ ফের সৌদি আরব প্রবাসে চলে গিয়ে সেখানে আরও একটি বিয়ে করে।বিগত ৫ বছর পূর্বে ধরা খেয়ে জেল খেটে দেশে চলে আসে,বেকার জীবনযাপন করতে থাকে।স্বামীর বেকারত্ব চিন্তা করে আশা,গ্রামীণ, ব্র‍্যাক ব্যাংক থেকে প্রায় ৪ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে গত ২ বছর পূর্বে কক্সবাজারস্থ রানার মোটরস শোরুম থেকে ১৪ লাখ টাকা মূল্যে কিস্তিতে একটি মিনি ট্রাক গাড়ি কিনে দেন।উক্ত গাড়ি স্বামী জহির আহমদ নিজেই চালিয়ে গাড়ীর কিস্তি এবং ব্যাংকের কিস্তি পরিশোধ করতেন।গত ৪/৫ মাস সহ প্রায় এক বছর ধরে গাড়ির কিস্তি ও ব্যাংক কিস্তি পরিশোধ করছেনা।এনিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়শই ঝগড়া হতো।বিভিন্ন ব্যাংক ও গাড়ির কিস্তি পরিশোধ নিয়ে শামিমা সোলতানা রেহেনা চরম বেকায়দায় পড়েন।
কিস্তির টাকা নিয়ে পূর্বের মত গত ২৪ জানুয়ারী দিনের বেলা ১২টায় কথা কাটাকুটির এক পর্যায়ে জহির আহমদ স্ত্রী শামিমা কে শারিরীক ভাবে বেধড়ক মারধর,শরীরের বিভিন্ন অংগে নীলাফোলা জখম করতঃ এক কাপড়ে তাড়িয়ে দেয়।এবং ভবিষ্যতে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করলে তালাক দিয়ে প্রানে মারার হুমকি দেয়।শামিমার ঘরে রক্ষিত,নিজের উপার্জিত অর্থ দিয়ে কেনা,দেড় লাখ টাকা মূল্যের কাপড়চোপড়, আসবাবপত্র, গুরুত্বপূর্ণ কাগজ,এনআইডি, জন্ম সনদ,শিক্ষাসনদ,শামিমার প্রবাসী ভাই আব্দুল্লাহর এনআইডি,জন্ম সনদ সহ গুরুত্বপূর্ণ রান্নাবান্নার সামগ্রী তালা ভেংগে লুটে নিয়ে যায়।শামিমার নিজস্ব সামগ্রী ছাড়াও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের রক্ষিত একটি অফিসিয়াল আলমিরা ভেংগে গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টসগুলো গায়েব করে ফেলেছে। বর্তমানে গাড়ির কিস্তি, এনজিওর কিস্তি সহ ১০ লাখের বেশী ঋণের টাকার বোঝা মাথায় নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে শামিমা।
স্বামী পরিচয়ী কথিত যুবদল নেতা জহির আহমদের প্রান নাশের হুমকিতে শামিমা সোলতানা রেহেনার বাবার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিনরাত পার করছে।নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় লিপিবদ্ধ করা সাধারণ ডায়েরি সুত্রে ওসি মোঃআনোয়ার হোসেন জানান,বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ঘুমধুম পুলিশ কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।জহির আহমদ পরবর্তী কোন ধরণের অত্যাচার করলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ কেন্দ্র ইনচার্জকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উল্ল্যেখ-জহির আহমদের বিরুদ্ধে, বিভিন্ন জনের নিকট থেকে ধার নেয়া লাখ-লাখ টাকা ছাড়াও তুমব্রু পশ্চিমকুল লতিফিয়া জামে মসজিদ, লতিফিয়া হিফজুল কোরআন মাদ্রাসার বিপুল অর্থ,কোরআন শরীফ কেনার টাকা আত্নসাতের বিস্তর অভিযোগ রয়েছে।

ভালো লাগলে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © bbsnews24 2020
Design BY NewsTheme
error: Content is protected !!