Logo
শিরোনাম :
রংপুরে দুটিতে ঢোল, একটিতে জয়ী নৌকা জয়পুরহাট পৌরসভার মেয়র মোস্তাকের উদ্যোগে ৪ হাজার পরিবারের মাঝে পূজার উপহার বিতরন এক কৃষিপণ্য হতে ৪ বার টোল আদায়, প্রতিকার চেয়েছে কৃষকরা কলারোয়ার কেরালকাতা ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচন-২০২০” স.ম মোরশেদ আলী নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬৮০৫ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল’ উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় দিবস-২০২০’ উদযাপিত কলসকাঠী ইউপি উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী বিজয়ী নির্বাচন কমিশন আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনে পরিণত হয়েছে–ফখরুল শার্শার ফ্রি খাবার বাড়ি পরিদর্শন করলেন জেলা শিক্ষা অফিসার বাইশারীতে হাজারো মানুষের চলাচল রাস্তায় জরাজীর্ণ কালভার্টটি অভিভাবকহীন,দেখার কেউ নেই যশোরের ঝিকরগাছায় তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীকে মারপিট ও মাথার চুল কেটে দেয়ার অভিযোগ

জয়পাড়া বাজারে আগুনঃ মসজিদের আহবানে রক্ষা পেলো শত কোটি টাকার সম্পত্তি

জোবায়ের শরিফ দোহার প্রতিনিধিঃ ভোর ৫ঃ৩০ঃজয়পাড়া বাজার, দোহার উপজেলার প্রাণকেন্দ্র জয়পাড়া বাজারের কাঠ ও ফার্নিচার পট্টিতে বুধবার ভোর ৫টায় আগুন লাগে। বাজার মসজিদের মাইকের আহবানে সাড়া দিয়ে ঘটনাস্থলে শত শত জনসাধারণ ও ফায়ার সার্ভিস আগুন নেভানোর কাজে অংশ নিলে রক্ষা পায় প্রায় শত কোটি টাকার সম্পত্তির কাঠ, ফার্নিচার ও স’মিল। তাতক্ষণিক ক্ষতির পরিমাণ ধরনাকরা হচ্ছে অর্ধ কোটি টাকা। ৬টি দোকান সম্পূর্ণভাবে ভস্মীভূত হয়। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি।

স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ী আব্দুল আলীম টিপু বলেন, কাঠ বাজারের পশ্চিম পাশে মওলা স’মিলের সাথের মোস্তফার চা’য়ের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে আমাদের ধারণা। আগুন লাগার স্থানটি ফার্নিচার কারখানা, স্পিরিট কেমিক্যাল ও স’মিলের গুদাম। আমরা সবাই মসজিদের মাইকের আহবানে জানতে পেরে দ্রুত উপস্থিত হই এবং যে যার মতো পানি নিয়ে আগুন নেভানোর কাজে যোগ দেই।
জয়পাড়া বাজারে পানির কোন উৎস নেই, কল ছাড়া আর বড় কোন রাস্তা না থাকার কারনে ফায়ার সার্ভিসের আগুন নিভাতে অনেক সমস্যা ও কষ্ট করতে হয়েছে। এছাড়া পরে তাদেরকে নদী থেকে পানি টানতে হয়েছে।

জয়পাড়া বাজার মসজিদ মোয়াজ্জেম মাওলানা শহিদুল ইসলাম নিউজ৩৯ কে জানায়, আগুন লাগার সাথে সাথে ইমাম হান্নান সাহেব আমাকে ফোন দেয় যে, জয়পাড়া বাজারে কাঠপট্টিটে আগুন লেগেছে; তাড়াতাড়ি মাইকে বলে সাহায্যের আহবান জানান।
ঘটনাস্থলে জনসাধারণ ছাড়াও দোহার উপজেলা প্রশাসন, দোহার থানা পুলিশ, ফায়ারসার্ভিসের একটি ইউনিট, আওয়ামী লীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন সুরুজ সরাসরি উপস্থিত থেকে আগুন নেভাতে ও চুরি রোধে সহায়তা করেন।

আগুনের উৎস সম্পর্কে ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা আব্দুল হক বলেন

যে, আমরা খবর পাওয়ার সাথে সাথে চলে আসি আর সে সময় থেকে আমরা আগুন নিভানোর কাজ শুরু করি আর আমাদের আগুন নিভেতে অনেক ধরনে সমস্যা হয় এর মধ্যে অন্যতম হল বাজারের রাস্তা বড় নয় আর পানির কোন উৎস নেই আর নদীর পাশ দিয়ে যে রাস্তাটি আছে সে টি দিয়ে আমরা গাড়ি টুকাতে পারলে আরো কম খয়ক্ষিত হত সে খান দিয়ে কাঠ ব্যাবসাইয়েরা গাছ ফেলে বন্ধ করে রেখেছে রাস্তাটি সে জন্য আমরা ওখান দিয়ে টুকতে পারি নাই ওখান দিয়ে টুকতে পরলে আমরা আরো আগে অগুন নিভাতে সক্ষম হতাম। আর আমাদের গাড়িতে পানি থাকে ২০০০ লিটার আর রাস্তা বড় না হওয়া করনে পানি গাড়ি থেকে আসতে আসতে দ্রুত নিভানোর সম্ভব হয় নাই আমরা ৬ঃ ৪০ আগুন নিভাতে সক্ষম হই আর এখানে ৪টি দোকানের খক্ষি হয় এতে কেউ হতাহত হয় নাই। খতির পরিমান এখনো আমরা বলতে পারতেছিনা আর আমাদের প্রথমিক ধারনা এই অগ্নি কান্ড বিদ্যুৎ এর সট সার্কিট থেকে বা চায়ের দোকান থেকে হতে পারে আমরা তদন্ত করবো তারপর সঠিকটা বলতে পারবো। এই অগ্নি কান্ডে যাদের দোকান পুরেছে তারা হল মুকসেদ, উওম দাস, আবদুল গফুর, মোঃ মোস্তফা কামাল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!