Logo
শিরোনাম :
চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিভিন্ন প্রকল্পের ভাগবাটোয়ারা নিয়ে শিবগঞ্জে আওয়ামীলীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষ আহত-৫ ঝিকরগাছা শংকরপুরে রাজবাড়ীয়া যুবসংঘের উদ্যোগে ৮ দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলার আয়োজন রামুর গর্জনিয়ায় পুলিশের সাথে বাজার ব্যবসায়ীদের মতবিনিময় ” অনলাইন গণমাধ্যমগুলোকে শিল্পে পরিণত করা উচিত ” আবু জাফর নারী নির্যাতন মামলায় বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তার জামিন না মজ্ঞুর করে কারাগারে প্রেরন ইমাম ওলামা পরিষদ রংপুরের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত। আরপিএমপি কমিশনারের জন্মদিন উপলক্ষ্যে রংপুরের দোয়া ও এতিমদের নিয়ে নৈশ ভোজের আয়োজন রূপগঞ্জে জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৪২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন মাগুরায় সুদের টাকা পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে এক পাষণ্ড স্বামী তার স্ত্রীকে ঋণদাতার হাতে তুলে দিয়েছেন বলে অভিযোগ ঝিকরগাছায় ফুল চাষীদের সাথে মতবিনিময় সভায় -জেলা প্রশাসক

গণপূর্ত বিভাগের হালিমের খুঁটির জোর কোথায়?

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি
বাকেরগঞ্জ উপজেলার কলসকাঠী ইউনিয়নের সাদিস গ্রামের আবদুল হালিম পটুয়াখালীর গণপূর্ত বিভাগে চাকুরীর সুবাদে সরকারি সম্পদ লুটেপুটে ফুলেফেপে উঠেছেন। পটুয়াখালীর গণপূর্ত বিভাগের গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৗশলী আবদুল হালিমের খুঁটির জোর নিয়ে তীব্র ক্ষোভ দেখা দেয়েছে জনমনে। হালিমের অপকর্ম নিয়ে বেশ কয়েক দিন যাবৎ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় লেখালেখি ও সংশ্লিষ্ট দপ্তরে বার বার অভিযোগ করা হলেও কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেন না কর্তৃপক্ষ। ফলে কোন কিছু তোঁয়াক্কাই করছেন না সে বরং উল্টো অভিযোগকারীর দেখে নেয়ার বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিচ্ছেন তিনি। গড়ে তুলেছেন বিশাল অট্টালিকা, বাড়ির প্রবেশদার জ্বলজ্বল করছে, মনমুগ্ধকর পাঁকা সড়ক, পুকুরে অত্যাধুনিক ঘাটলা এক কথায় অজোপাড়া গায়ে রাজকীয় জীবন-যাপন। এছাড়াও তিনি গণপূর্ত বিভাগের গেট চুরি করে লাগিয়েছেন পারিবারিক কবরস্থানে। এসবকিছুই করেছেন তিনি ঘুষ, দুর্ণীতি, লুটপাট আর চুরি করা টাকা দিয়ে। এমনই অভিযোগ করেছেন বাকেরগঞ্জ উপজেলার কলসকাঠী ইউনিয়নের সাদিস গ্রামের মোঃ হেলাল খন্দকার। অভিযোগগ সূত্রে জানা যায়, পটুয়াখালী গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ আবদুল হালিম গণপূর্ত বিভাগে চাকুরী করার সুবাদে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্ণীতির আশ্রয় নিয়ে অল্প সময়ের মধ্যে কোটি কোটি টাকার মালিক হয় আবদুল হালিম। গ্রামের বাড়িতে গড়ে তোলেন ৫ তলা ফাউন্ডেশনের দ্বিতল বিলাসবহুল ভবন, বাকী কাজ নির্মাধীন। এ ছাড়াও বাড়ির সম্মুখ থেকে ভবনের সিঁড়ি পর্যন্ত পাঁকা সড়ক, কবরস্থান, পুকুরের অত্যাধুনিক ঘাটলা নির্মাণ করেন। যাতে খরচ হয় প্রায় অর্ধ কোটি টাকা। তার স্ত্রী নামে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশে ১২ কাটা জমি যার মূল্য প্রায় ৫ কোটি টাকা। হালিমের মা মরহুম সকিনা বিএস ২৪১নং খতিয়ানের ২০নং কবরস্থনে ১ শতাংশ জমির মালিক। গোরস্থান নির্মাণের সময় পাশের দাগ বিএস ৮৭ এবং ৭৯ দাগ ইউনিয়ন পরিষদের নামে রেকর্ডীয় সরকারি রাস্তার জমির উপর দেয়াল নির্মাণ করেন। জানা যায়, বিএস ৩১৩,২৯১,১৬৯ খতিয়ানের ২০নং কবরস্থানের দাগের কবলা ও রেকর্ডীয় সূত্রে মালিক ওয়াদুদ খন্দকার গং। এ বিষয় ওয়াদুদ খন্দকার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আঃ রাজ্জাক তালুকদার মনুকে অবহিত করলে তিনি নির্মাণ কাজ স্থগিত রাখার নির্দেশ দেন। কিন্তু হালিম খামখেয়ালীভাবে পরের দিনই সকালে চেয়ারম্যানের নির্দেশ অমান্য করে গায়ের জোরে পাঁকা দেয়াল নির্মান করেন। বিএস নকশা অনুযায়ী গোরস্থানের পাশের রাস্তাটি ১৬ ফিট চওড়া। দেয়াল নির্মাণের ফলে রাস্তাটি ৬ ফিটে পরিনত হয়েছে। যার ফলে ওই রাস্তা দিয়ে যানবাহন চলাচল খুবই অসুবিধা হচ্ছে। সরেজমিনে দেখা যায়, এই দেয়াল নির্মাণ কাজে তিনি গণপূর্ত বিভাগ থেকে চুরি করে আনা সরকারি গেট ও পুরাতন রড ব্যবহার করেন। সূত্রে আরও জানা যায়, আব্দুল হালিমের নামে ঢাকা ডেমরা ব্রীজের ওপারে বরাব মৌজায় রূপগঞ্জ থানায় ৯ শতাংশ জমি যার বর্তমান মূল্য প্রায় ৫ কোটি টাকা। এবার সরকারি জমিতে পারিবারিক কবরস্থান নির্মাণ করছেন। এ ছাড়াও দেশের বিভিন্ন ব্যাংক ও বীমায় নামে-বেনামে রয়েছে লাখ লাখ টাকা। এই দুর্ণীতিবাজ আবদুল হালিমের শ্বশুর-শ্বাশুরী ও ভাই-বোনদের নামেও রয়েছে অঢেল সম্পদ রয়েছে যার কোন কর ফাইল নাই। সব সম্পত্তির উৎস দাতা আঃ হালিম বলে অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে। এ ব্যাপারে পটুয়াখালী গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ আবদুল হালিমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সব বিষয় ফোনে কথা বলা যায় না। আমার অফিসে আসেন সাক্ষাতে কথা বলবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!