Logo
শিরোনাম :
চিলমারীতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পালিত হচ্ছে দুর্গাপূজা নারীর নিজের বাড়ি কই মিথ্যা ধর্ষণ প্রচেষ্টা মামলার প্রতিবাদে গ্রামবাসীর মানববন্ধন অষ্টমীতে সদরের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ কলারোয়ার মানিকনগর গ্রামবাসীকে হয়রানীর প্রতিবাদে গ্রামবাসীর প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন অষ্টমীতে সদরের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ বগুড়ার আদমদীঘিতে ৬০ কেজি গাঁজা উদ্ধারসহ তিন মাদককারবারীকে গ্রেপ্তার সহ পাজারো গাড়ি জব্দ শারদীয় দূর্গা উৎসব উপলক্ষ্যে শার্শা উপজেলার বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন খুলনার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এম এ সালাম আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সাংবাদিক সংস্থার উপদেষ্টা নির্বাচিত বেনাপোলে ভারতীয় মোবাইল ও মোটরসাইকেল সহ দুই পাচারকারী আটক

মুন্সীগঞ্জে যৌতুকের টাকা না পেয়ে অন্ত:সত্বা স্ত্রীকে তাড়িয়ে দিলেন স্বামী

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জে যৌতুকের টাকা না পেয়ে ৭ মাসের অন্ত:সত্বা রাহিমাকে ব্যাপক মারধর করেছে স্বামী জুয়েল ও শাশুরি দেবরা । এ ঘটনার প্রতিবাদ করতে গিয়ে মার খেলেন অন্ত:সত্বা রাহিমার,মা,বাবা,ভাই,ভাবিসহ আরো অনেক। বুধবার (২৯ এপ্রিল) ও বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) দুই দফা হামলা ও মারধরের ঘটায় জুয়েল ও তার পরিবারে লোকজন। সদর উপজেলার চরাঞ্চলের বাংলাবাজার ইউনিয়নের বানিয়াল মহেশপুর পশ্চিম কান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে,মহেশপুর পশ্চিম কান্দি গ্রামের নবু বকাউলের মেয়ে রাহিমা বেগম(১৮) একই গ্রামের ছলেমান মিঝির ছেলে জুয়েল মিঝির সাথে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। তখন ছেলেপক্ষ মেয়ে পক্ষের কাছে এক লক্ষ টাকা ও এক ভড়ি স্বর্ণ যৌতুক দাবী করেন,দাবীকৃত এক লক্ষ টাকার মধ্যে বিয়ের আগে ৮০ হাজার টাকা পরিশোধ করা হলেও তাদের দাবীকৃত বাকী ২০ হাজার টাকা ও এক ভড়ি স্বর্ণ পরিশোধ করতে না পারায় স্বামী জুয়েল ও তার পরিবারে লোকজন ৭ মাসের অন্ত:সত্বা রাহিমা কয়েক দফা ব্যাপক মারধর করে তাড়িয়ে দেয়।
পরে রাহিমার পরিবারে লোকজন বিষয়টি যানতে গেলে রাহিমার মা ফাতেমা বেগম (৬০),বাবা নবু বকাউল (৬৫),বড় ভাই আল-আমিন (২২),ভাবি ছমাইয়া বেগম (২০) ও মাহমুদা বেগম (২২) কে মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পরেছে পরিবারটি। এব্যাপারে মেয়ে পক্ষের লোকজন বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) মিমাংশা করার চেষ্টা করেও পুনরায় তার বাবা নবু বকাউলকে মারধর করে।
অন্ত:সত্বা রাহিমা বেগম বলেন, জুয়েল আমাকে ভালোবেসে বিয়ে করেছে। বিয়ে আগে আমাদের মধ্যে প্রেম ভালোবাসার সম্পর্ক ছিলো। বিয়ের সময় একলাখ টাকা ও এক ভড়ি স্বর্ণ দাবী করে জুয়েল ও তার পরিবার সেটাই টাকা পুরো পরিশোধ করতে না পারায় কয়েক দিন পর পর আমাকে মারধর করে। আমার বাবা মা ভাইয়েরা প্রতিবাদ করলে তাদেরও মারধর করে তারা। এখন এদের ভয়ে বাড়ী থেকে বের হতে পারছিনা। বিষয়টি নিয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।
মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে ও যৌতুকের ৭০ হাজার টাকা নিয়েছে শিকার করে অভিযুক্ত জুয়েল ও তার মা আছিয়া বেগম বলেন, যৌতুকের এক লক্ষা টাকা ও এক ভড়ি স্বর্ণ দেয়ার কথা তার মধ্যে মাত্র ৭০ হাজার টাকা দিয়েছে আর স্বর্ণ এখনো দেয়নি। #


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!