Logo

সন্দ্বীপ মগধরা ইউনিয়নে চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী সুমনের হাতে ছুরিকাঘাতে আলী রাজু(২৮) ও আশ্রাফ(২৪) আহত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ উপজেলায় চাঁদার জন্য ছুরিকাঘাতে আহত করেছেন সুমন নামের সন্ত্রাসী।আর এই ঘটনা ঘটে সন্দ্বীপ মগধারা ২ নং ওয়ার্ডের হাজী ইদ্রিস মুন্সির বাজার আলী রাজু স্টোরে(প্রকাশ জসিম সওদাগরের দোকান) আজ সকাল সাড়ে ১০টায় আলী রাজু স্টোরের মোহাম্মদ আলী রাজুর কাছ থেকে চাঁদা চায় সুমন কিন্তু চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় সুমন ও তার ভাই শাকিল মিলে মোহাম্মদ আলী রাজু, মোহাম্মদ আশরাফ ও দোকানের কর্মচারীর উপর হামলা চালায়।ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকেন সুমন,এতে মোহাম্মদ আশরাফের ঘাড়ে ও আলী সুমনের বগলের নিচে ছুরি ঢুকে যায়।আরো আহত হয় দোকানের কর্মচারী। ভিক্টিম আলী রাজু জানায়, আমাদের দোকানের একটা সিঁড়ি সরকারি রাস্তায় পড়েছে বলে সে এর আগেও অনেকবার আমাদের কাছে চাঁদা দাবি করেন। বলেন তুদের দোকান সরকারি জায়গায় পড়েছে অথচ এই সুমন কোন সরকারি লোক না।চাঁদা চাওয়ায় আমরা ভূমি অফিসের কর্মকর্তা,মগধারা ২নং ওয়ার্ড মেম্বার ও মগধারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস,এম আনোয়ার হোসেন এই সিঁড়ি ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেন। আমরা তখনি এই সিঁড়ি ভেঙে ফেলেছি।এরপরেও কয়েকবার সুমন আমাদের কাছে চাঁদা চাইছে। এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে সুমন কেন চাঁদা চাইবে এবং আমি কেন চাঁদা দিবো তাকে?আর চাঁদা না দেওয়ায় আমাদের উপর পরিকল্পিত হামলা চালায়। এই ঘটনায় আহত হোন মোহাম্মদ আলী রাজু(২৮) ও মোহাম্মদ আশরাফ(২৪)।উভয়ের পিতা মোহাম্মদ জামসেদুর রহমান প্রকাশ জসিম সওদাগর।

আবদুর রব মালাদারের বাড়ী।মগধারা ২নং ওয়ার্ড, হাজী ইদ্রিস মুন্সির বাজার। হামলাকারীর নাম মোহাম্মদ সুমন(৩৫)।ছুরি এনে দেয় সুমনের ভাই শাকিল(২২)উভয়ের পিতার নাম ইলিয়াস মেম্বার, ইলিয়াস মেম্বারের বাড়ি।মগধারা ২নং ওয়ার্ড। এই বিষয়ে আহত মোহাম্মদ আলী সুমন ও মোহাম্মদ আশরাফের পিতা জামসেদুর রহমান(প্রকাশ জসিম সওদাগর)জানান অনেক আগে থেকেই এই সুমন আমাদের পিছনে লেগে আছে কারণ আমরা কেন সিঁড়ির বিষয় নিয়ে চেয়ারম্যান সহ মিমাংসা করলাম।আমার দোকানের সিঁড়ি সরকারি জায়গায় পড়ছে আমরা ভেঙে ফেলেছি তাহলে কেন তাকে আমরা চাঁদা দিতে যাবো।আর তখন থেকে আমাদের উপর হামলা করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলো। আহতরা সন্দ্বীপ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছেন।ডাক্তার সুমনার আওতায় চিকিৎসা চলছে আহত এই দুই ভাইয়ের। এই বিষয়ে থানায় ফোন করলে ইনস্পেকটর সোলাইমান বলেন আসামি ধরা হয়েছে। মামলা পক্রিয়াধীন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!