Logo
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধুর মহানুভবতা বেনাপোল স্থল বন্দর পথে ভ্রমন খাতে রাজস্ব আরো কমার সম্ভাবনা রয়েছে টাঙ্গাইলের মধুপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে কলেজ ছাত্রীর আত্বহত্যা সন্ত্রাসীরা প্রার্থীদের ওপর হামলার দুঃসাহস দেখাচ্ছে :- প্রচারণাকালে ডাঃ শাহাদাত পাহাড়ে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে পুনর্বাসন করা হবে-রেজাউলের গণসংযোগ পায়রা বন্দর রামনাবাদ চ্যানেলের জরুরী রক্ষণাবেক্ষণ ড্রেজিং এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠান! কচ্ছপিয়ায় দুই পক্ষের হামলায় আহতদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল ঝিকরগাছার নারাঙ্গালীতে কম্বল মাষ্ক ও গাছের চারা বিতরণ নোয়াখালীতে বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হলেন- কাদের মির্জা ঝিকরগাছা কুুুমরী বেতনা নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলন

টেন্ডার নিয়ে রসিকে হট্টগোল, কাউন্সিলর লাঞ্ছিত

আফরোজা বেগম, রংপুরঃ
রংপুর সিটি করপোরেশনে (রসিক) টেন্ডার ড্রপ নিয়ে এক কাউন্সিলের সাথে মেয়রের লোকজনের হট্টগোলের ঘটনা ঘটেছে। এতে ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল আলম রতনকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (৪ জুন) দুপুরে সিটি করপোরেশন ভবনে দরপত্র জমা দেয়ার সময় ওই কাউন্সিলরকে মেয়রের ভাই আনিস ও তার লোকজন বাঁধা দেয়। এনিয়ে সেখানে হট্টগোল বাঁধে।

ওই সময় কাউন্সিলর রতন টেন্ডার ড্রপে বাঁধার মুখে প্রতিবাদ করায় তাকে শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করাসহ অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়েছে। এদিকে লাঞ্ছিতের ঘটনার প্রতিবাদে রসিকের মূল ফটকের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন অন্য কাউন্সিলররা।

ঘটনার জন্য সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার ভাই আনিস ও তার লোকজনদের দায়ী করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা রোববার পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়ে আল্টিমেটাম দেন বিক্ষুব্ধ কাউন্সিলররা। ওই সময়ের মধ্যে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া হলে কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারি দেন তাঁরা।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, প্যানেল মেয়র মাহবুবার রহমান টিটু, ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম, ২১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহাবুবার রহমান মঞ্জু, ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হারাধন রায়, ১৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাকারিয়া আলম শিবলু , সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ফেরদৌসি বেগম প্রমুখ।

কাউন্সিলররা অভিযোগ করেন, মেয়র হিসেবে মোস্তাফিজার রহমান দায়িত্ব গ্রহণের পর সিটি করপোরেশনকে পারিববারিক ও দলীয় প্রতিষ্ঠানে পরিনত করেছেন। করপোশেনের বেশিরভাগ উন্নয়ন কাজের ঠিকাদারি তার ভাই আনিস ও দলীয় ক্যাডাররা জোর জবরদস্তি মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করে আসছে। টেন্ডার কন্ট্রোলসহ তারা অন্য কাউকেই টেন্ডার ড্রপ করতে দেয় না। এ ছাড়াও সার্বক্ষনিক বহিরাগতরা মেয়রের আশেপাশে ও তার ভাই আনিসের সাথে থাকেন।

তাদের দাবি, বৃহস্পতিবার করপোরেশনের ১৫টি গ্রুপের টেন্ডার দাখিলের তারিখ ছিলো। এর মধ্যে এক নম্বর গ্রুপটি মেয়রের ভাই আনিস ও তার ক্যাডার বাহিনী কন্ট্রোল করছিলো। ওই গ্রুপে টেন্ডার দাখিল করতে বাঁধা প্রদান করায় ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল আবেদীন রতন প্রতিবাদ করায় সেখানে হট্টগোল শুরু হয়। এসময় মেয়রের ভাই আনিস ও তার লোকজন কাউন্সিলর রতনকে শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করেন। এরপর তারা কাউন্সিলরদের সম্পর্কে অশালীন ও আপত্তিকর ভাষায় গালাগালি দেয়।

বিক্ষুব্ধ কাউন্সিলররা বলেন, মেয়র যেমন জনগনের ভোটে নির্বাচিত, তেমনি কাউন্সিলররাও জনগনের নির্বাচিত প্রতিনিধি। এভাবে নির্বাচিত কোনো জনপ্রতিনিধিকে লাঞ্ছিত করা হলে তা সহ্য করা হবে না। এ ঘটনায় আগামী রোববারের (৭ জুন) মধ্যে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চেয়ে মেয়রকে আল্টিমেটাম দেন তাঁরা।

এদিকে ওই ঘটনার ব্যাপারে মেয়র মোস্তাফিজার রহমানের সাথে সন্ধা সাড়ে ৬টায় মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হয়। তার ভাই আনিসের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেন।

মেয়রের দাবি, তার ভাইয়ের নাম জড়িয়ে তাকে হেয় করার চেষ্টা করা হচ্ছে। কিছু কাউন্সিলর আনডিউ এ্যাডভানটেজ চেয়ে না পাওয়ায় তার বিরুদ্ধে এমন অপপ্রচার চালাচ্ছেন। ##


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!