Logo

বিয়ে করে ৩ মাস সংসার করে পালিয়ে যান সন্দ্বীপের শিপন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রেম করে পালিয়ে বিয়ে করেন মোহাম্মদ শিপন ও রিমা সরকার। বিয়ের ৩ মাসের মাথায় স্ত্রী রিমা সরকার কে একা রেখে পালিয়ে যান তার স্বামী মোহাম্মদ শিপন।

উল্লেখ্য যে গত ২০ই মার্চ চট্টগ্রামে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয় মোহাম্মদ শিপন ও রিমা সরকার। শিপনের গ্রামের বাড়ি সন্দ্বীপ মুছাপুর ইউনিয়নের মান্দির গো বাড়ি।পিতার নাম মোহাম্মদ আব্দুর রহিম, মাতার নাম মোছাম্মদ নাছিমা বেগম।শিপন মুছাপুর ওয়ার্ড নং-০৬ এর বাসিন্দা। অপরদিকে রিমা সরকারের বাড়ি চাঁদপুর জেলার মতলব থানার পূর্ব ইসলামাবাদ নন্দলালপুরে।পিতার নাম আহমেদ সরকার, মাতার নাম তাছলিমা বেগম।মা-বাবার একমাত্র মেয়ে রিমা সরকার যদিও আর এক ছেলে আছে তাদের আদনান নামর।

২০ই মার্চ এই দম্পতি বিয়ে করে চট্টগ্রামের ভাটিয়ারীতে বসবাস করা শুরু করে। প্রায় ৪০/৪৫দিন যাওয়ার পরে রিমা বাসায় নেওয়ার চাপ সৃষ্টি করলে শিপন তাকে গ্রামের বাড়ি সন্দ্বীপে নিয়ে যায়।গ্রামের বাড়ি যাওয়ার পর শিপনের মা মোছাম্মদ নাছিমা বেগম তার ছেলে ও ছেলের বউ কে বলে আপাতত কয়েকমাস তোমার ভাড়া বাসায় থাকো,আস্তে আস্তে তোমার আব্বা সব মেনে নিবে তখন চলে আসবে।আর এই কথায় শিপন ও রিমা ৫দিন পর সন্দ্বীপ থেকে আবারও চট্টগ্রামের ভাটিয়ারীতে তাদের ভাড়া বাসায় চলে আসেন।

বাসায় আসার পর ৩দিন থেকে শিপন তার স্ত্রী রিমা সরকারকে একা রেখে পালিয়ে যান। স্ত্রী রিমা সরকার ফোন করে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন তুই নষ্ট মেয়ে,তুই নষ্ট না হলে এতদূর থেকে আমার সাথে কি করে পালিয়ে আসলি।আমি তুর কাছে যাব না বলে মোবাইল ফোনের সব নাম্বার পাল্টে দেয়।

এই বিষয়ে রিমা সরকারের সাথে কথা বলে জানা যায় যে,শিপনের সাথে পালিয়ে বিয়ে করার কারণে আব্বু, আম্মু, ভাই আমাকে আর মেনে নিবে না।ত্যাজ্য করেছে বলে জানান রিমা সরকার। মা,বাবা,ভাই, আত্মীয় স্বজন হারিয়ে একা একটা রুমে কাটছে রিমা সরকারের ভালবাসার সংসার।

রিমা সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি আরো জানান আমি শুধু শিপনের শাস্তি চাই যাতে করে আমার মত আর কারো জীবন ধ্বংস করতে না পারে।সংসার করবেন কি না জানতে চাইলে আরো বলেন অসম্ভব আমি ভূল করে ভালবেসে বিয়ে করে সব হারিয়েছি।ইচ্ছে থাকা সত্বেও আমি ফিরে যেতে পারছি আমার বাবা-মার কাছে। আমি শুধু শিপনের শাস্তি চাই।

অভিযোগকারী রিমা সরকারকে থানায় মামলা করেছে কি না জানতে চাইলে রিমা বলেন আসলে মামলা করার মত টাকা আমার কাছে নেই। মামলা করতে একজন উকিলের কাছে গিয়েছিলাম কিন্তু ২০০০টাকার জন্য মামলা করতে পারি নাই। আমি শিপনের এলাকার নাদিম চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আপনি আপনার দেশে চলে যান।এমতাবস্থায় আমি অভিভাবক হারা একটা মেয়ে কার কাছে যাবো।বাসায় খাওয়ার নেই, বাসা ভাড়া দিতে পারতেছিনা। সবকিছু থেকেও প্রেমের জন্য সব হারিয়ে ফেলেছি আমি।

রিমা সরকারের অভিযোগের ভিত্তিতে তার স্বামী শিপনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার সব মোবাইল নাম্বার বন্ধ পাওয়া যায়, এমনকি শিপনের মা মোছাম্মদ নাছিমা বেগমের মোবাইল নাম্বার বন্ধ পাওয়া যায়। অন্যদিকে রিমা সরকারের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করলে তাদেরও সব নাম্বার বন্ধ পাওয়া যায়।এই বিষয়ে সন্দ্বীপ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন রিমা সরকার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!