শিরোনাম :
মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটায় শেষ স্বাস্থ্য বুলেটিন পরিবেশন করা হবে অনলাইনে টাকার অভাবে বিনা চিকিৎসায় বিছানায় পড়ে আছে সুধাংশু-সাহায্যের আকুতি চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রকাশ্যে মাদক সেবনের দায়ে ৮ মাদকসেবিকে আটক করেছে র্র্যার পূরুষশুন‌্য ঘরে আতংকে দিন কাটাচ্ছে নিহত বখতিয়ার মেম্বারের পরিবার সোনার বাংলা গড়ে তুলতে সহযোগিতা করবে বঙ্গবন্ধুর ভাষন কলারোয়ায় সরকারি ঔষধ আত্মসাতের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন খাগড়াছড়ি পৌরবাসীর প্রাণের দাবি চার লেন সড়কের নির্মান কাজ শুরু মিরাশী প্রবাসী সংগঠনের পক্ষে ঘরের টিন বিতরণ
রূপগঞ্জে ২৪ বছর পর কমিটির গুঞ্জনে সরব ছাত্রদল; ত্যাগী মুল্যায়ন না হলে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

রূপগঞ্জে ২৪ বছর পর কমিটির গুঞ্জনে সরব ছাত্রদল; ত্যাগী মুল্যায়ন না হলে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

মোঃ রিপন মিয়া,
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি‘র) রূপগঞ্জ উপজেলা বিএনপি নেতাদের অন্তঃকোন্দলে ত্রিভাগা বলয়ে বিভক্ত থাকার সুযোগে চা্ঙ্গা ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ। শুধু তাই নয়, দলের অঙ্গ সংগঠন ছাত্রদলে ১৯৯৫ এর পর প্রায় ২৪ বছর পেরিয়ে গেলেও নতুন কমিটি দিতে পারেনি তারা। ফলে দীর্ঘ বছর ধরে এ অঞ্চলে বিএনপি কোনঠাসা অবস্থায় । তবে সম্প্রতি জেলা ছাত্রদল সেই বাঁধ ভেঙ্গে কমিটির অনুমোদন দিতে যাচ্ছেন। তবে সেই কমিটিতে প্রভাব খাটাচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেন বিএনপি নেতা মোস্তাফিজুর রহমান দীপু ভুঁইয়া দিকে। স্থানীয় ছাত্রদল নেতা আবু মোহাম্মদ মাসুম অভিযোগ করে বলেন, যারা
নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বাঁচাতে সরকার দলীয় নেতাদের আনুগত্যে করে বিএনপির সর্বনাশ করেছেন, কিংবা যে সকল ছাত্রনেতারা দলের কোন কাজে কখনো সক্রিয় ছিলো না তাদের কমিটিতে কোন পক্ষ স্থান করে দিলে কঠোর আন্দোলন হবে। তিনি আরো বলেন, সুলতান মাহমুদ তার ২৬ বছর বয়সে দলীয় কর্মসূচি পালন করতে যেয়ে ৪২টরাজনৈতিক মামলার আসামী হয়েছে। ৫ বারের অধিক জেলে যেতে হয়েছে। তার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ছাড়া কোন মামলা নেই। অন্যদিকে দীপু ভুঁইয়ার সমর্থন নিয়ে একজন আওয়ামী পরিবারের সদস্যকে উপজেলা ছাত্রদলে স্থান করাতে লবিং করছেন যা নিন্দনীয়৷ যার দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নেয়ার, কোন প্রকার ত্যাগের নজির নেই এমন লোকদের ছাত্রদলের কমিটিতে থাকতে দেয়া হবে না। প্রয়োজনে কঠোর আন্দোলন হবে।
সূত্র জানায়, ১৯৯৫ ইং সনে সাবেক প্রয়াত স্বরাস্ট্র মন্ত্রী আব্দুল মতিন চৌধূরীর জীবদ্দশায় তৎকালীন নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদল সভাপতি মোশারফ হোসেন ও সাধারন সম্পাদক জাহিদ হাসান রুজেল উপজেলা ছাত্র দলের সভাপতি আনোয়ার ছাদাত সায়েম, সাধারন সম্পাদক আশরাফুল হক রিপনসহ একটি পূর্ণাঙ্গ উপজেলা শাখা কমিটির অনুমোদন দেন। পরে ২০০২ইং সনে ঘরোয়াভাবে পুনরায় একই কমিটি অনুমোদন নিয়ে তাদের কার্যক্রম চালান। এরপর এ পর্যন্ত কোন কমিটি গঠন করতে পারেনি তারা। আর জেলার ছাত্রদলের নেতৃত্বে পরিবর্তন হয়ে সভাপতি হিসেবে মশিউর রহমান রনি ও সাধারন সম্পাদক পদে খাইরুল ইসলাম সজীবসহ তাদের প্যানেল হাল ধরেন । পরে ২০১৪ইং সনে রূপগঞ্জ উপজেলা শাখার নতুন কমিটির আশ্বাস দিয়ে ভেঙ্গে দেয় পুরনো কমিটি। এর আগে ২০০৮ এর জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ অঞ্চলের বিএনপিতে নমিনেশন বিতর্কে জেলা বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য মুক্তিযোদ্ধা কাজী মনিরুজ্জামান মনির, সাবেক বিআরটিসি চেয়ারম্যান ও জেলা সভাপতি এ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান দিপু ভুঁইয়া ত্রিবিভক্ত হয়ে পড়েন। এর পর এ এলাকার বিএনপির সাংগঠনিক কার্যক্রম কিছুটা স্থবির হয়ে পড়ে। তবে খাতা কলমে অনুমোদন ছাড়াই উপজেলা ছাত্রদলের হাল ধরেন আবু মোহাম্মদ মাসুম, সুলতান মাহমুদ, আজিম সরকার, মেহেদী হাসান রিপন ও ওমর ফারুকসহ একাধিক গ্রুপ। এদের মধ্যে আবু মোহাম্মদ মাসুম রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড সভাপতি হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন ২০০২এর কমিটিতে। পরে ইউনিয়ন সভাপতির দায়িত্বে থাকাকালীন আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় এলে দলীয় কর্মসূচী পালন করতে যেয়ে নাশকতার নামে রাজনৈতিক মামলার শিকার হন তিনি। এভাবে বিএনপির ডাকা হরতাল সফল করতে যেয়ে রূপসী, গাউছিয়ার একাধিকবার ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও পুলিশের হামলা, মামলার শিকার হন। এসব কাজে সঙ্গী ছিলেন সুলতান মাহমুদসহ একটি ত্যাগী ছাত্রদল নেতাকর্মী। দলীয় কর্মসূচী পালন করতে যেয়ে সরকার দলীয়দের ২৩টি বিভিন্ন অপরাধের নামে রাজনৈতিক মামলায় আটকে যান আবু মোহাম্মদ মাসুম। একই সময়ে ছাত্রদল নেতা সুলতান মাহমুদের নামে ৪২টি, আজিম সরকারের নামে ১৯টিসহ প্রতিটি ছাত্রদল নেতার নামে ১০টির অধিক মামলা ঝুলে যায়। শুধু তাই নয়, দল ক্ষমতায় না থাকলেও দলীয় কর্মসূচী পালনে এসব ছাত্রদলের নেতা কর্মীরা নিরলস রাজপথে কাজ করে আসছেন। তবে বয়সভারে আবু মোহাম্মদ মাসুম ছাত্রদলে টিকে থাকতে না পারলেও স্থানীয়দের দাবী ত্যাগি, নির্যাতিত, অবদান বিবেচনায় সুলতান মাহমুদকে উপজেলা ছাত্রদলের দায়িত্ব দেয়ার।
এ বিষয়ে জেলা ছাত্রদলের নারায়ণগঞ্জ জেলা সাধারন সম্পাদক খাইরুল ইসলাম সজীব বলেন, ২৪ বছর পর হলেও আমরা নতুন কমিটি দিতে যাচ্ছি। যারা দলের জন্য কাজ করেছেন তারাই স্থান পাচ্ছে। তবে আনুষ্ঠানিক কোন প্রভাব খাটানো চলবে না।
এ বিষয়ে মোস্তাফিজুর রহমান ভুঁইয়া দিপু বলেন, কোন প্রভাব খাটানোর সুযোগ নেই। দল যাদের যোগ্য মনে করবে তাদের স্থান দিবে। এখানে অবশ্যই ক্লিন ইমেজ থাকতে হবে।
এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী মনিরুজ্জামান মনির বলেন, আওয়ামীলীগের হামলা, মামলায় জর্জরিত উপজেলা বিএনপি গোঁছাতে সময় ব্যয় হয়েছে। দলের দুঃসময়ে যে সকল ছাত্রনেতারা দলের পাশে থেকে কাজ করেছেন তাদের মধ্যে আবু মাসুম,সুলতান মাহমূদসহ অনেকের ভুমিকা রয়েছে। ঐসকল ত্যাগি কর্মীদের মুল্যায়নের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ভালো লাগলে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © bbsnews24 2020
Design BY NewsTheme
error: Content is protected !!