Logo
শিরোনাম :
ভারত থেকে দেড় বছর পর বেনাপোল বর্ডার দিয়ে দেশে ফিরল ৪ বাংলাদেশি যুবতী আটঘরিয়ায় বেতন স্কেল আপগ্রেডেশনসহ বিভিণ্ন দাবি আদায়ের লক্ষে কর্মবিরতি চাঁপাইনবাবগঞ্জে হয়রানির অভিযোগে বিজিবি ও ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন ঝিকরগাছা জোনাল অফিস কমপ্লেক্সে’র শুভ উদ্বোধন….ডা. নাসির উদ্দিন এমপি চিলমারীতে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে ইউনিয়ন পর্যায়ে অধ-বার্ষিকী সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত নাইক্ষ্যংছড়িতে ৭হাজার ৭শ ৭০ পিস ইয়াবাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার আটঘরিয়ার মাজপাড়ায় মিনি নাইট ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত খুলনা দাকোপে অক্সিজেন সিলিন্ডার ব্যাংক ক্যানুলা প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন বাকেরগঞ্জ পৌর নির্বাচনে শিউলিকে পুনরায় নারী কাউন্সিলর হিসেবে পেতে চায় এলাকাবাসী কলারোয়ায় মুক্তিযোদ্ধার ধর্ষিতা স্ত্রীকে দেখতে আসলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল জেনারেল এসএম মুনীর

বিশ্ব পর্যটন খাতে ক্ষতি ছাড়াবে সোয়া লাখ কোটি ডলার

করোনা মহামারির কারণে চলতি বছর বিশ্ব পর্যটন খাতে ক্ষতি ছাড়াবে সোয়া লাখ কোটি ডলার। যা বৈশ্বিক জিডিপির প্রায় তিন শতাংশ। পাশাপাশি পুরো বিশ্বে এ খাতের ১০ কোটি মানুষের কাজ হারানোর আশঙ্কা রয়েছে। তবে দেশগুলোর অভ্যন্তরীণ পর্যটনকে সচল করা গেলে এ ক্ষতি অনেকাংশে কাটিয়ে উঠা সম্ভব।

জাতিসংঘের বিশ্ব পর্যটন সংস্থার এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এসব তথ্য।

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের কারণে বছরের প্রথম থেকেই বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। ব্যাপকভাবে ব্যাহত আন্তর্জাতিক সব ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা ও ব্যবসা-বাণিজ্য। বেশিরভাগ দেশের অভ্যন্তরীণ লকডাউন ও নানা নিষেধাজ্ঞায় বেশ লম্বা সময় ধরেই বন্ধ ছিল আকাশ, নৌ, রেল এবং স্থলপথে চলাচল। এতে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত পর্যটন খাত। যেখানে বৈশ্বিক বাণিজ্যে এ খাতের অবদান ৭ শতাংশের বেশি।

সম্প্রতি জাতিসংঘের বিশ্ব পর্যটন সংস্থার এক প্রতিবেদন বলছে, মহামারির প্রভাবে বিশ্ব পর্যটন খাতে ক্ষতি ৯১০ বিলিয়ন থেকে ১ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যেতে পারে। এতে বৈশ্বিক জিডিপি কমবে দেড় থেকে ২.৮ শতাংশ। একই কারণে এ খাতের ১০ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান ঝুঁকিতে রয়েছে। করোনা উন্নত দেশের পর্যটন খাতে নেতিবাচক প্রভাব ফেললেও উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য ব্যাপক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পর্যটন খাতের উন্নয়নে নানা দিক নির্দেশনা দিচ্ছে সংস্থাটি। যেহেতু করোনার কারণে বিদেশি পর্যটক আশানুরূপ পাওয়া যাবে না, তাই দেশগুলোর অভ্যন্তরীণ পর্যটনের চাহিদা বাড়ানোর পরামর্শ দিচ্ছে ইউএনডব্লিউটিও। গ্রামীণ পরিবেশ বা প্রকৃতি-ভিত্তিক পর্যটনের জন্য স্থানীয় কেন্দ্রগুলোর অবকাঠামো উন্নয়নে বিনিয়োগ বাড়ানোর কথা বলছে সংস্থাটি।

করোনার প্রকোপ কিছুটা কমায় এরইমধ্যে বিভিন্ন দেশে খুলে দেয়া হয়েছে বেশিরভাগ পর্যটনকেন্দ্র। তবে সেজন্য পর্যটকদের মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধিসহ অন্যান্য নির্দেশনা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!