শিরোনাম :
উপ-নিবার্চন উপলক্ষে ঈশ্বরদীতে আসেন মাহবুব উল আলম হানিফ চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রিয় মূখ বিশিষ্ট সমাজসেবক ও ব্যবাসায়ী মূখলেস আ’লীগের সহ-সভাপতি মনোনীত কলসকাঠীতে উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল জাতীয় দৈনিক মাতৃজগত পত্রিকার চট্টগ্রাম বিভাগীয় সভা অনুষ্ঠিত আশাশুনিতে অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা পরিবেশ শর্ত ভঙ্গের দায়ে সীতাকুণ্ডের কেএসএ স্ট্রীল ও সীমা স্ট্রীল কে ৫ লক্ষ ২০হাজার টাকা জরিমানা সেতুবন্ধন কল্যাণ সমবায় সমিতির নতুন সভাপতি রেজাউল সাধারণ সম্পাদক হেমায়েত খুলনার বটিয়াঘাটায় ভূমি অফিস দালাল নির্মূলে ভ্রাম্যমান আদালতে ২ জনকে জরিমানা চৌহদ্দিটোলা সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ পটিয়ার তিতা গাজীর বাড়িতে প্রতিপক্ষের হামলা মহিলাসহ আহত-৩,
আপন-পরের সংজ্ঞা কিছুটা বিদ্ঘুটে আর গোলমেলে

আপন-পরের সংজ্ঞা কিছুটা বিদ্ঘুটে আর গোলমেলে

মুহা. সফিক খানঃ
আমি ছোটবেলা থেকে একটু অন্যরকম প্রাকৃতির। আট-দশটা ছেলের মত আমার জীবন নয়। আমি নিরব থাকতে বেশি পছন্দ করি। আমি সবকিছু নিয়ে একটু বেশি ভাবি। তবে হ্যাঁ আমার ভাবনাটা সবসময় পজিটিভ। আমি মানুষকে আমার সামর্থ অনুযায়ী সাহায্য করতে ভালোবাসি সেটা আমার জন্য কষ্টের কারণ হলেও। কারো মুখে হাঁসি ফোটাতে পারলে মনে হয় আমার জন্মটা সার্থক। নিকট বন্ধু-বান্ধবদের সাথে আমার মনের কথা খুলে বলতে কোনো সমস্যা মনে করিনা। খুব সহজে মানুষকে আপন ভেবে ফেলি। সামর্থ্যবান এবং ঘনিষ্ঠ মানুষের কাছে আমি বেশিরভাগ সময় বিপদগ্রস্থ হয়েছি। কেন তারা আমার সাথে এমন করেছে_ তার কারণ আমার জানা নেই। কিন্তু সেসব বিপদ থেকে আমি যে উদ্ধার পাইনি তা নয়। সব রকম বিপদ থেকেই আমি উদ্ধার পেয়েছি। অদ্ভুতভাবে কম ঘনিষ্ঠ কিংবা স্বল্প পরিচিতরাই বিপদের সময় এগিয়ে এসেছেন। কেউ এসেছেন স্বেচ্ছাপ্রণোদিত হয়ে। যাদের কাছে সাহায্যটা আমি চাইনি। যাদের ঠিক আপন হিসেবে, বন্ধু হিসেবে বিবেচনাতেই নিইনি কখনও! তারাই বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রকমের বিপদ থেকে আমাকে টেনে তুলেছেন। তাদের সেই হাতগুলো পরম মমতায় আমাকে খাদের কিনার থেকে তুলে এনেছে। আমার মুখ থেকে মুছে দিয়েছে উদ্বেগের ঘাম। আপন-পরের সংজ্ঞা আমার কাছে তাই কিছুটা বিদ্ঘুটে আর গোলমেলেই।
আমি কারো নোংরা কথার উত্তর নোংরা ভাষায় দিতে পছন্দ করিনা। আমি কারো সাথে খারাপ ব্যবহার মোটেই পছন্দ করিনা। আমি সবসময় হাঁসি মুখে কথা বলতে পছন্দ করি। আমি যেটা করিনা কেনো প্রতিটা কাজ করার পূর্বে অন্তত দুবার ভেবে দেখি কাজটা করা কতটা ঠিক আমার জন্য। যদি নিজ থেকে মনে হয় কাজটা আমার জন্য ঠিক হবে তবেই করি। আমি কারো বাঁধানিষেধ পছন্দ করিনা কারণ আমি বিশ্বাস করি যদি একটা মানুষ নিজ থেকে ভালো পথ অনুসরণ না করে তাকে শত চেষ্টা করেও ভালো পথে নিয়ে আসা সম্ভাব নয়। আমি যেটা ভালো মনে করি সবসময় তাই করি। লেখালেখির প্রতি আমার অন্যরকম একটা সখ আছে। আমার ভালোলাগা, খারাপলাগা, স্মৃতিময় মুহূর্ত ডায়েরীর পাতায় নোট করা ছোটবেলার অভ্যাস। আমি সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের একটা সন্তান। প্রতিদিন আমাকে নিজের সাথে যুদ্ধ করে মনোবল ধরে রাখতে। তারপরেও মাঝে মাঝে খুব একা হয়ে পরি, মনে হয় এই পৃথিবীর আলো বাতাস আমার জন্য নয়। আমার মত সাধারণ একটা ছেলের স্বপ্ন দেখাও পাপ। তবে হ্যাঁ ! এটা সত্যি আমি এক সময় নিজেকে নিয়ে অনেক বড় বড় স্বপ্ন দেখতাম। স্বপ্ন বাস্তবায়নের সর্বাত্মক চেষ্টা করতাম। কিন্তু আমার স্বপ্ন ভাঙার শুরুটা এভাবে হবে আমি কখনো প্রত্যাশা করিনি।
একটা সময় ভাগ্যকে মেনে নিয়ে সামনে একটু একটু করে এগিয়ে ছিলাম সময়ের সাথে। কিন্তু সেটাও খুব ভালো হলনা। ব্যর্থতার কষ্ট আমার জীবনটাকে প্রতিনিয়ত করে তুলছিলো বিষক্তময়। স্বপ্ন ভাঙার কষ্ট একটা মানুষের জীবনটাকে এভাবে নষ্ট করে দিতে পারে তা কখনো কল্পনাও করিনি। মাঝেমাঝে খুব ভাবনায় বিভোর হয়ে পরি, তখন নিজের কাছে প্রশ্ন জাগে জীবনটা কেনো এতটা বৈচিত্র্যময়?
ছোটবেলা থেকে এমন কোনো কাজ করিনি যেটা আমার পরিবার, সমাজ, দেশের জন্য ক্ষতিকর। প্রতিটা ক্ষেত্রে ছিলো আমার সততার প্রতি একটা আকর্ষণ। জানিনা আমার সামনের পথ চলা কতদূর পাড়ি দেওয়া সম্ভাব হবে। তবে ব্যর্থতা জীবনের একটা অংশ হিসেবে ধরে নিয়ে একটু একটু করে সামনের দিকে চলছি। এমন একটা মানুষ হতে চাই, যাকে যত নির্মম পরিস্থিতির মাঝে ফেলে দেওয়া হোকনা কেনো সেখান থেকে যেনো ক্যাম ব্যাক করতে পারি। স্বপ্ন বা লক্ষ্য বলতে এখন আমি বুঝি মানুষের মত মানুষ হওয়া। সততাকে নিজের ভিতর অটুট রেখে মানুষের কল্যাণে নিয়োজিত করে সকল অন্যায় কাজ থেকে নিজেকে দূরে রেখে মানব জীবন পাড়ি দিতে পারাটাই এখন আমার লক্ষ্য।

ভালো লাগলে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © bbsnews24 2020
Design BY NewsTheme
error: Content is protected !!