Logo
শিরোনাম :
করোনার দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিলেন আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন এমপি বগুড়া নিজ এলাকায় রমজানে অসহায় ৩০০ পরিবারের পাশে হিরো আলম পূবাইল প্রেসক্লাবের ত্রি-বার্ষিকী কমিটি গঠন চাঁপাইনবাবগঞ্জে জেলা কৃষক লীগের ৪৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট ইউএনওর নির্দেশে আওয়ামী লীগ আওয়ামীলীগ পিটিয়ে জখমের অভিযোগ বরিশাল বিভাগীয় অনলাইন প্রকাশক ও সম্পাদক পরিষদ কমিটি গঠন শ্রমিক হত্যার প্রতিবাদে বরিশালে বিক্ষোভ সমাবেশ অপরাধ দমনে বরিশাল নগরীর চারদিকে বসানো হচ্ছে সিসি ক্যামেরা কেশবপুরে লকডাউন না মানায় ৫ ব্যবসায়ীকে জরিমানা হ্যাকারের কবলে কলারোয়ার বিকাশ এজেন্ট ব্যাবসায়ী ৩৮ হাজার টাকা

গুরুত্বপূর্ণ এলাকা গুনাগরী চত্বর ইদানিং রূপ নিচ্ছে দীর্ঘ যানযট,ফিরতে লাগে দিনের অর্ধেক

মোহাম্মদ এরশাদ,বাঁশখালী প্রতিনিধিঃ
দক্ষিণ চট্টগ্রামের পটিয়া-আনোয়ারা-বাঁশখালী (পি.এ.বি.) সড়ক বাঁশখালী উপজেলার গুনাগরী (চৌর-রাস্তা) চৌমুহনী এলাকায় প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যার পরও তীব্র যানজট লেগেই থাকে। কক্সবাজার জেলায় যোগাযোগের বিকল্প সড়ক হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে বাঁশখালী এই প্রধান সড়কটি। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) বিকাল ৩টায় উপজেলার কালীপুর ইউনিয়নস্থ গুনাগরী চৌমুহনী হইতে রামদাশ মুন্সির হাট ও ডলমপীর মাদ্রাসা এলাকা জুড়ে তীব্র যানযটের দৃশ্য দেখা যায়।

দুঃসহ এই যানজটে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ছে দক্ষিণ চট্টগ্রাম সহ কক্সবাজারের সাধারণ যাত্রীরা। বাঁশখালীর চাঁদপুর,গুনাগরী, জলদী, টাইম বাজার,মনছুরিয়া বাজার, চাম্বল বাজার ও নাপোড়া বাজার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, মোড়, ট্রাফিক পয়েন্ট না থাকায় এবং স্থানীয় প্রশাসনের কোন ধরণের ভুমিকা না থাকায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে থাকা সাধারণ মানুষজন সীমাহীন ভোগান্তিতে পোহাচ্ছেন। এই বাস্তবতায় বাঁশখালী উপজেলার একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে যাতায়াতে দীর্ঘ সময় লেগে যাচ্ছে। এই সড়কের দুই পাশে ফুটপাতগুলোও দখল করে আছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও হকারা। এমন অবস্থায় বাঁশখালী সড়কের যথেচ্ছ ব্যবহার হচ্ছে।
চট্টগ্রাম জেলা দক্ষিণ ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, বাস্তবে রাস্তার তুলনায় গাড়ির সংখ্যা বেশি। আবার গাড়ির তুলনায় যাত্রীর সংখ্যা কয়েকগুণ বেশি। যে কারণে বাঁশখালী প্রধান সড়কে যানজট লেগে থাকে। এরপরও প্রতিদিন নতুন নতুন গাড়ি নামছে, কিন্তু রাস্তা বাড়ছে না।
এই সড়কে এস.আলম, সাইন লাইন, সৌদিয়া, বাঁশখালী সুপার সার্ভিস, বাঁশখালী স্পেসাল সার্ভিস, মালেক শাহ্ সার্ভিস, লালবোর্ড সহ লোকাল সার্ভিসের বাসগুলো নিয়মিত চলাচল করে, অন্যদিকে বাঁশখালী পরিবহন সংস্থা, হযরত শাহ্ জালাল শাহ্ আমানত (রাঃ) ট্রান্সপোর্ট সার্ভিস, বাঁশখালী আল মদিনা ট্রান্সপোর্ট সার্ভিস, বাঁশখালী-পেকুয়া ট্রান্সপোর্ট সার্ভিস সহ ট্রাক, মিনি ট্রাক, ড্রাম্পট্রাক সহ বিভিন্ন মাল বাহী গাড়ীগুলো দিনের বেলায় রাস্তায় পার্কিং করে মালামাল অনলোড করে। এছাড়াও সিএনজি চালিত আটোরিক্স ও ব্যাটারী চালিত আটোরিক্সার সংখ্যাও কম নয়। যার কারণে বাঁশখালীর প্রধান সড়কে দিন দিন যানঝট বৃদ্ধি হচ্ছে। ফলে মিনিবাস, বিভিন্ন প্রাইভেট গাড়ী বিভিন্ন যানবাহন ব্যবহার করেও কতক্ষণে গন্তব্যে পৌঁছানো যাবে- তার উত্তর অজানা থেকে যায়।
উপজেলা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রধান সড়ক আরো বড় করে নির্মাণ করলেই যানজট অর্ধেকে নামিয়ে আনা সম্ভব। কিন্তু এসব ব্যাপারে দায়িত্বশীলদের কোনো উদ্যোগও নেই, নজরও নেই।
এর সঙ্গে আরোরিক্সা সিএনজি অনুরূপ যানের ব্যাপকতা তো আছেই।
এ ব্যাপারে বাঁশখালী উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি ও কালীপুর ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট আ.ন.ম শাহাদত আলম বলেন, চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী বাঁশখালীর উপকূলীয় এলাকা বেড়িবাধ হয়ে বক্সবাজার টু চট্টগ্রাম শহরে যাতায়তের জন্য বিকল্প সড়কের জন্য সংসদ অধিবেশনে একটি প্রকল্প প্রস্তাব দিয়েছেন, এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলেই বাঁশখালীও ১৪ ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার মানুষের ভৌগান্তি কমে আসবে এবং গুনাগরী চৌমুহনী এলাকাটি বাঁশখালী বাসীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এলাকায়, এই এলাকায় যানঝট নিরসনের জন্য আমি উপজেলা আইন শৃঙ্খলা মিটিং এ বিভিন্ন প্রস্তাব দিয়েছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!