Logo
শিরোনাম :
অবৈধ কসাইখানা ও পরিবেশ দূষণের সংবাদ প্রচারে সাংবাদিককে হুমকি বগুড়ার উপশহর এলাকায় তরুণীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ভারতে কুরআনের ২৬টি আয়াত বাতিল চেয়েছেল ওয়াসিম রিজভী;তার বিরুদ্ধে পাল্টা রিট দায়ের যশোর ২৫০ শয্যা মেডিকেল হাসপাতালে আইসিইউ চালু ও খাদ্য দাবিতে মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে রোজ মেডিকেল সেন্টারকে ভোক্তা অধিকার এর জরিমানা লকডাউন চলাকালীন কর্মহীন প্রতিটি পরিবার পাবে নগদ ৫০০ টাকা আশাশুনিতে ভ্রাম্যমান খাদ্য সামগ্রী বিক্রয়ের উদ্বোধন করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাবনা জেলা আটঘরিয়া থানার হাফিজুর রহমান শ্রেষ্ঠ ওসি আশাশুনিতে কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রম এগিয়ে চলছে ঝালকাঠির নলছিটিতে সিটিজেন ফাউন্ডেশনের ইফতার সামগ্রী বিতরণ শুরু

এক’শ পাঁচ বছরে স্বপ্ন পূরণ… উদ্ভাবক মিজানের যোগাযোগে বয়স্ক ভাতার কার্ড পেল শতবর্ষী দুই বৃদ্ধ

 

জসিম উদ্দিন : যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বকুলিয়া গ্রামের সেই শতবর্ষী পার করা ডিম বিক্রেতা মনছোপ আলী এবং তার বোন ১শ ৫ বছরের নবীসনকে অবশেষে সরকারি বয়স্ক ভাতার আওতায় আনা হলো।

তাদের বৃদ্ধ বয়সের নড়বড়ে হাতে তুলে দেওয়া হলো ভাতার কার্ড। সোমবার দুপুরে দেশ সেরা উদ্ভাবক মিজানুর রহমানের হাত দিয়ে এই ভাতার কার্ড তুলে দিলেন উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা আয়ুব হোসেন।

নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব জনাব আব্দুস সামাদ স্যারকে এ বিষয়ে ধন্যবাদ জানিয়েছেন উদ্ভাবক মিজান।

পাশাপাশি ঝিকরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরাফাত রহমান এবং উপজেলা সমাজসেবা অফিসার দ্রুততম সময়ে পদক্ষেপ গ্রহন করাই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য : যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের বকুলিয়া গ্রামের সবচাইতে প্রবীণ ব্যক্তি নবীসন খাতুনের (১০৫) এবং ১শ ২ বছরের মোনছোপ আলী সরকারি বয়স্ক ভাতার আওতায় আসলেও এ সেবা থেকে বঞ্চিত ছিলেন তারা।

বছরের পর বছর ইউনিয়ন পরিষদের বারান্দায় ধর্ণা দিলেও বয়স্ক ভাতা জোটেনি তাদের। এ অবস্থায় নবীসন খাতুন তার জরাজীর্ণ শরীর নিয়ে বাড়িতে থাকলেও মনছোপ আলী অর্থের প্রয়োজন মিটাতে গ্রামে গ্রামে ডিম ফেরি করে বিক্রি করতেন তিনি।

এমন একটি ঘটনা উদ্ভাবক মিজানের নজরে আসলে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে ওই বৃদ্ধাদের কাছে ছুটে যান তিনি। তাদেরকে নিয়ে ফেসবুকের পাতায় লাইফ করে সামনে আনলে নজর কাড়ে নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব জনাব আব্দুস সামাদ মহোদয়ের।

তিনি উদ্ভাবক মিজানকে সহযোগিতা করা এবং খোঁজখবর নেওয়ার জন্য বললে গোটা বিষয়টি ছাপা হয় জেলার শীর্ষস্থানীয় পত্রিকা দৈনিক যশোরে। ভাইরাল হয় গোটা বিষয়টি।

খুব অল্প সময়ের মধ্যেই দুই বৃদ্ধকে কাছে টেনে নেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরাফাত রহমান।

উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তাকে সাথে নিয়ে অল্প সময়ের মধ্যে তাদেরকে বয়স্ক ভাতার আওতায় আনার আশ্বাস দেন তিনি। তারই ধারাবাহিকতায় সরকারি ভাতা প্রাপ্তি হলেন এই দুই বৃদ্ধ।

এর আগে বৃদ্ধা নবীসন খাতুনের চলাচলের সুবিধার্থে তাকে একটি হুইলচেয়ারের ব্যবস্থা করেন সমাজ সেবক ও উদ্ভাবক মিজান।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শংকরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নেছার উদ্দিন, মহিলা ইউপি সদস্য আলেয়া খাতুন, তরুণ সাংবাদিক ও সমাজসেবক জনাবজিল্লুর রহমান, সাংবাদিক হাসানুল কবীর, জসিম উদ্দিন সহ স্থানীয় ব্যক্তবর্গ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!