Logo
শিরোনাম :
সাংবাদিক ফয়সাল রাকিব’র জন্মদিন উদযাপন নওগাঁর পোরশা বিষ্ণপুর গ্রামে BNP এর জোড়পূর্বক হাসুয়া রামদার ভয় দেখিয়ে জমি দখল শার্শার বিশিষ্ট বস্ত্র ব্যাবসায়ীর আকষ্মিক মৃত্যু নদী ভাংঙ্গ মেঘনা পাড়ের মানুষের কাছে পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম আম রাজ্যের তিন রাজার গল্প নাইক্ষ্যংছড়ি বাজার কখন সিসি ক্যামরার আওতায় আশাশুনির গুনাকরকাটি দরবার শরীফ মসজিদের দানবক্স থেকে টাকা চুরি চেয়ারম্যানকে জড়িয়ে মিথ্যা মামলার নিষ্পত্তি চায় এলাকাবাসী রূপগঞ্জে সাংবাদিকের রিয়াজের উপর সন্ত্রাসী হামলা, অবস্থা আশঙ্কাজনক ঝিকরগাছা বড়পোদাউলিয়ায় রাস্তা দখল করে প্রাচীর নির্মাণের অভিযোগ

শিবগঞ্জে অনিয়মের মধ্যেই কেনা হচ্ছে গম : সাংবাদিকদের হুমকি

চলতি অর্থ বছরে শিবগঞ্জে গম সংগ্রহে কৃষককে বঞ্চিত করে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অনিয়ম ও দূর্নীতি করে কেনা হচ্ছে ভারতীয় গম। এমন সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় সাংবাদিকদের একদিকে হুমকি অন্যদিকে প্রভাবশালীদের তদবীর অব্যহত রয়েছে। তবে এসব অভিযোগগুলো অস্বীকার করেছেন কর্তৃপক্ষ।

এদিকে অনুসন্ধানে জানা গেছে, গত অর্থ বছরে গম সংগ্রহে অনিয়ম ও দুর্নীতির সংবাদ বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় গম সংগ্রহ করা বন্ধ হয়ে যায়। যার ফলে গত অর্থ বছরের টাকা ফেরত চলে যাই।

এছাড়াও ২০১৭ সালে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা জান মোহাম্মদ এর বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির কারণে তাঁকে ওএসডি করে জরুরি ভিত্তিতে বদলী করা হয়। তথ্য অনুসন্ধানে জানা গেছে, সরাসরি গোডাউনে গম সংগ্রহ না করে কৃষকদের বাদ দিয়ে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে খাদ্য গুদামে গম সংগ্রহ করা অব্যহত রয়েছে।

গত ২০ মে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলে সিন্ডিকেটের মুলহোতা এন্তাজ আলী মুঠোফোনে সংবাদিকদের দেখে নিবো সহ বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করেন।

তথ্য অনুসন্ধানে আরো জানা গেছে যে, সংগ্রহীত গম ভারত থেকে সোনামসজিদ স্থল বন্দর দিয়ে ও ঠাকুরগাঁও থেকে আমদানি করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, বিভিন্ন এলাকার বড় বড় গম ব্যবসায়ী ও পাইকারদের কাছ থেকে সরকারী ভাবে গম নেওয়া হচ্ছে বলেও একাধিক সূত্রে জানা গেছে।

উল্লেখ্য যে, তারা তাদের মনোনীত কৃষকদের নামে গম সংগ্রহের ভাউচার তৈরি করছে বলে জানা গেছে এবং তাদের মাধ্যমে ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করা হচ্ছে।

অন্যদিকে, কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, শিবগঞ্জ উপজেলার ৬ হাজার ৮০০ হেক্টর জমিতে এবছর ৪২ হাজার মেট্রিক টন গম উৎপাদন হয়েছে। কিন্তু সেই উৎপাদিত গম সংগ্রহ না করেই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে গম কেনা হচ্ছে।
এছাড়া উপজেলা কৃষি অফিসার শরিফুল ইসলাম গম সংগ্রহের কৃষকদের তালিকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, উপজেলা গম সংগ্রহের কমিটির সভাপতি ও সদস্য সচিবের অনুমতি ছাড়া কৃষকদের তালিকা দেয়া যাবে না।
উপজেলা খাদ্যগুদামের এলএসডি গোলাম রসুল এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ২০ মে দুপুর পর্যন্ত প্রায় ১৫’শ ৪৮ মেট্রিক টন গম সংগ্রহ করা হয়েছে। সুত্রমতে, শুক্র ও শনিবার গম সংগ্রহ বিষয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি তথ্য দিতে অস্বীকার করেন।

তবে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জান মোহাম্মদ জানান, গত শুক্রবার পর্যন্ত ১৬’শ ৫০ মেট্রিক গম সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি সিন্ডিকেটের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমরা প্রকৃত কৃষকদের কাছ থেকে দেশীয় গম সংগ্রহ করছি।

সাংবাদিকদের হুমকি দেয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সাংবাদিকদেরকে হুমকিদাতা এন্তাজ আলীকে আমি চিনি জানি না।
এব্যাপারে খাদ্য সংগ্রহ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো সাকিব আল রাব্বী জানান, ভারত থেকে গম আনার তথ্য প্রমাণ সাপেক্ষে পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তিনি আরো বলেন, শুধু কৃষকদের তালিকায় নয়, কৃষি বিভাগের যে কোনো তথ্য মিডিয়াকর্মীকে দেয়া উপজেলা কৃষি অফিসারের দায়িত্ব। সিন্ডিকেটের মুলহোতা এন্তাজ আলী মিডিয়াকর্মীদের হুমকি দেয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখবো। উল্লেখ, সরকারীভাবে আগামী ৩০ জুনের মধ্যে ২৯’শ ৯ মেট্রিক টন গম সংগ্রহ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!