Logo

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের প্রবেশদ্বারে বাঁশের ব্যারিকেট দিয়ে চলছে অঘোষিত ‘লকডাউন’

হুমায়ুন আহমেদ
ষ্টাফ রিপোটার,আদমদীঘিঃ
নওগাঁয় করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে চলছে এক সপ্তাহের বিশেষ লকডাউন। এ কারণে অবাধে গণ পরিবহন চলাচল না করতে বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের প্রবেশদ্বারগুলো আটকে দেয়া হয়েছে। ফলে অঘোষিত ‘লকডাউন’ চলছে সান্তাহারে। শুক্রবার (৪ জুন) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে শহরের একাডেমি স্কুল ও সাবেক জয়পুরহাট বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বাঁশের ব্যারিকেট দিয়ে লাল কাপড় টাঙিয়ে দেয়া হয়। যার কারণে গণ পরিবহন ও বড় যানবাহন সান্তাহার পৌর শহরে আর প্রবেশ করতে পারবে না। জানা গেছে, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে নওগাঁ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে গত ৩ জুন থেকে আগামী ৯ জুন পর্যন্ত ‘লকডাউন’ ঘোষণা করা হয়। কিন্তু সীমান্ত ঘেঁষা উপজেলা হবার কারণে অধিকাংশ গণ পরিবহন নওগাঁর নিকটবর্তী বগুড়ার সান্তাহার পৌর শহরের পশ্চিম ঢাকা রোড থেকে যাত্রী পরিবহন করছিল। একসঙ্গে গণ পরিবহনে চলাচল করা ভিন্ন জেলার যাত্রীরা সান্তাহারে প্রবেশ করে চলাফেরা করছিল। এ কারণে লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে বগুড়া জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা পেয়ে আদমদীঘি উপজেলা প্রশাসন সান্তাহার পৌর শহরের প্রবেশদ্বারে বাঁশের ব্যারিকেট দিয়ে লাল কাপড় টাঙিয়ে গণ পরিবহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এ কাজে সার্বিক সহযোগিতা করে সান্তাহার পৌরসভা ও ফাঁড়ি পুলিশের সদস্যরা। সান্তাহার পৌরসভার প্যানেল মেয়র জার্জিস আলম রতন বলেন, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে নওগাঁয় শুরু হয়েছে এক সপ্তাহের বিশেষ লকডাউন। কিন্তু পাশের সান্তাহার এলাকা থেকে গণ পরিবহন ও জনসাধারণ চলাচল করায় বিষয়টি উদ্বেগজনক। সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক আরিফুল ইসলাম বলেন এসব কারণে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও সরকারি নির্দেশনা মেনে চলতে পুলিশ কাজ করবে। এ বিষয়ে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহবুবা হক বলেন, জেলা প্রশাসকের নির্দেশে নওগাঁ থেকে যেসব পয়েন্ট দিয়ে মানুষ সান্তাহারে প্রবেশ করছে সে সব পয়েন্ট আটকে দেয়া হয়েছে। আগামী ৯ জুন পর্যন্ত অবাধে চলাফেরার বিষয়ে নেয়া নির্দেশনা সবাইকে মেনে চলতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!