Logo
শিরোনাম :
চাঁপাইনবাবগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ও ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত কলারোয়ায় ইউপি চেয়ারম্যানের মানসম্মান রক্ষায় সাধারণ ডায়েরী উজিরপুর উপজেলার প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদকের স্মরণে শোক সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত রূপগঞ্জে ৪র্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের পর হত্যা; খুনি গ্রেফতার শার্শায় নৌকার মনোনয়ন জেরে হামলা: ইউপি সদস্যসহ আহত ২০ রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি কলামিস্ট মীর আব্দুল আলীমের পিতৃবিয়োগ চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাটে ফায়ার সার্ভিসের অনন্য দৃষ্টান্ত ; জীবন বাঁচালো শালিক পাখির পটুয়াখালীর দশমিনায় ছাত্রদলের কর্মিসভা অনুষ্ঠিত আহমদিয়া ডলমপীর (রাঃ) সিনিয়র মাদ্রাসায় বার্ষিক ঈদে মিল্লাদুদ্নবী (সাঃ) সম্পন্ন মধুপুরে আনারস ও পেয়ারা প্রক্রিয়াজাতকরণে উদ্বুদ্ধ করার জন্য প্রশিক্ষণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ম্যাক্স হাসপাতালের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ, স্থানীয়দের বাঁধায় বন্ধ

ফয়সাল আজম অপু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
প্রায় ৪০ বছর বয়সী একটি মেহগনির গাছ। রাস্তার মোড়ে থাকা পৌরসভার গাছটি ছায়া দিয়ে আসছে গত ৪ দশক ধরে। গাছটির পশ্চিমদিকে সম্প্রতি গড়ে উঠেছে অত্যাধুনিক একটি বেসরকারি হাসপাতাল। গাছটির অবস্থান, চাকচিক্যে পরিপূর্ণ হাসপাতালটির মূল ফটকের সামনে হওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কিছুটা সমস্যা হয়। কিন্তু কি আর করার সরকারি জায়গায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার গাছ। তার উপর আবার স্থানীয় বাসিন্দাদের অন্যতম আশ্রয়স্থল মেহগনির গাছটি। তাই চাইলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গাছটি কাটতে পারেনি।

বেসরকারি হাসপাতালের সামনে থাকা চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেহগনি গাছটি কাটতে গেলে বাঁধা দেয় স্থানীয়রা। বুধবার (১৩ অক্টোবর) ভোররাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহরের ম্যাক্স হাসপাতালের সামনে থাকা গাছটি স্থানীয়দের বাঁধার মুখে কাটতে পারেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। স্থানীয়দের দাবি, দিনের বেলা কাটতে না পেরে ভোররাতে গাছটি কাটতে শুরু করে ম্যাক্স হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ।

ভোররাতেই মোড়ের দোকানদাররা বিষয়টি জানতে পেরে বাঁধা দিলে গাছ কাটা বন্ধ হয়। কিন্তু তার আগেই গাছের মূল দুটি ডাল কাটা হয়ে যায়। বুধবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দুটি মূল ডালের খড়ি ও কাঠ সরিয়ে নিলেও তখনও একটি বড় ডাল পড়ে আছে। এমনকি হাসপাতালের দিকের সবচেয়ে বড় ডাল কেটে নেয়া হয়েছে।

গাছটির ছায়াতে আশ্রয় নিয়ে ডাবের ব্যবসা করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহরের মসজিদপাড়ার ফরহাদ হোসেন। তিনি বলেন, এক সপ্তাহ আগেও গাছের কয়েকটি বড় ডাল কাটা হয়েছে। আজ (বুধবার) ভোররাতে ম্যাক্স হাসপাতাল মিস্ত্রী ভাড়া করে গাছটি কাঁটা শুরু করে। দুটি বড় ডালও কাটা হয়ে যায়। পরে এখানকার দোকানদাররা জানতে পেরে প্রতিবাদ করলে গাছ কাটা বন্ধ হয়। তাদের পরিকল্পনা ছিল, সকালের আগেই গাছটি কেটে ফেলার।

স্থানীয় বাসিন্দা চা দোকানী আব্দুর রাজ্জাক ও হোটেল ব্যবসায়ী নুর সালাম জানান, জন্মের পর থেকে গাছটি ৩ রাস্তার মোড়ে দেখছি। সরকারি রাস্তার মাটিতে পৌরসভার গাছ এটি। অথচ কয়েকমাস আগে ম্যাক্স হাসপাতাল হয়েছে। নিজেদের সুবিধার জন্য এতো বড় একটি গাছ কেটে সাবাড় করছে। অথচ আমরা জানি, সরকারি গাছ অনুমতি ছাড়া কেউ কাটতে পারে না। সেটা মরা গাছ হলেও না। অথচ জীবিত দীর্ঘদিনের গাছ কেটে নিচ্ছে।

মসজিদপাড়ার রিকসাচালক জুয়েল আলী বলেন, মেহগনির গাছের নিচে রিকসা নিয়ে অনেক রিকসাওয়ালা বিশ্রাম নিতো। কিন্তু ম্যাক্স হাসপাতাল হওয়াতে তা হয় না এখন। পুরো মোড়ের ছায়ার ব্যবস্থা হয় একটি গাছ থেকে। আমরা গাছটি কাটতে শুরু থেকেই বাঁধা দিচ্ছি। কারন এটি সরকারি গাছ। এর সুবিধা জনগণের নেয়ার অধিকার রয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় এক যুবক বলেন, কয়েকদিন আগে বিদুৎ অফিসের লোকজন গাছের ডালপালাগুলো কেটে গেছে। এমনকি বিদ্যুৎ সংযোগের তার গাছটি থেকে অনেক দূরে। যেখানে বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন গাছের মূল ডাল কাটতে যায়নি, সেখানে ম্যাক্স হাসপাতাল কিভাবে গাছ কাটতে যায়। শুধু নিজেদের সুবিধা দেখতে গিয়ে তারা খুব অন্যায় কাজ করেছে এবং স্থানীয় লোকজনকে হতাশ করেছে।

এবিষয়ে মুঠোফোনে ম্যাক্স হাসপাতালের পরিচালক ডা. ইসমাইল হোসেন বলেন, গাছটি পৌরসভার। তাই পৌর মেয়রের মৌখিক অনুমতি নিয়ে গাছটির কিছু অংশ কাটা হয়েছে। এদিকে, ম্যাক্স হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডা. গোলাম রাব্বানী মুঠোফোনে বলেন, এবিষয়ে আমি কিছুই জানি না। যদি গাছের ডালপালা কেটে থাকে সেটা আমার অগোচরে কেটেছে। বিষয়টি আমি দেখবো।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, গাছ কাটার কোন অনুমতি দেয়া হয়নি এবং এবিষয়ে কিছুই জানি না। এসময় মেয়রের সামনেই হাসপাতালের পরিচালক ডা. ইসমাইল হোসেনকে ফোন দিলে তিনি আবারও বলেন, পৌর মেয়রের অনুমতি নেয়া হয়েছে। তবে তা পুনরায় অস্বীকার করেন মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!