Logo
শিরোনাম :
পোরশা সীমান্তে ভারতের অভ্যন্তরে এক বাংলাদেশী আটক বটিয়াঘাটা দলিল লেখক সমিতি নেতৃবৃন্দ কেন্দ্রীয় সভায় যোগদান বটিয়াঘাটা দলিল লেখক সমিতি নেতৃবৃন্দ কেন্দ্রীয় সভায় যোগদান আলীকদমে গৃহহীনদের ঘর নির্মাণে অনিয়ম-দুর্নীতি, ইউএনও কর্তৃক মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিল বাগআঁচড়ায় নৌকায় ভোট চাইলেন জেলা ছাত্রলীগ বঙ্গমাতা পরিষদের নতুন কমিটি ঘোষণা সাজেদা চৌধুরী সভাপতি ও আনিছুর রহমান সম্পাদক পাবনায় মাছ শিকার করে ৪ লাখ টাকা পুরষ্কার জিতলেন দুই ব‍্যবসায়ী সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত ১২নং ওয়ার্ড গড়তে এম.এ মনজুরের বিকল্প নেই বাঁশখালীতে পূজা উদযাপন পরিষদ ও সনাতনী সমাজের মিলনমেলা অনুষ্ঠিত শ্যামনগরের চাঞ্চল্যকর শিশু ধর্ষণ মামলার আসামী আটক

কালকিনিতে নির্বাচনী প্রচারণার সময় দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫,জনমনে আতঙ্ক

রাকিব হাসান, মাদারীপুরঃ

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনী প্রচারণার সময় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সঙ্গে বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের আহত হয়েছেন অন্তত পাঁচজন। বুধবার সকালে উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের জালালপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।এ নিয়ে সাধারন ভোটারদের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

আহত ব্যক্তিরা হলেন লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তোফাজ্জেল হোসেনের ভাতিজা আনসার হাওলাদার (২৮) ও ফয়সাল শিকদার (২৪) এবং তাঁর সমর্থক উজ্জ্বল সরদার (২৪)। স্বতন্ত্র ও বিদ্রোহী প্রার্থীর দাবি, আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর সমর্থকেরা তাঁদের প্রচারণায় বাধা সৃষ্টি করে অতর্কিতে হামলা চালাচ্ছেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সকাল ১০টায় তোফাজ্জেল হোসেনের পক্ষে প্রচারণায় নামেন তাঁর কর্মীরা । সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ইউনিয়নের সাবেক ১নং ওয়ার্ডের জালালপুর এলাকায় প্রচারণা শুরু করেন তোফাজ্জেলের সমর্থকেরা। একই সময় আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী মজিবর রহমান মোল্লার পক্ষের লোকজনও ওই এলাকায় প্রচারণা শুরু করেন। পরে দুই পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান করে দেশি লাঠিসোঁটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে আহত হন উভয় পক্ষের পাঁচজন। আহতদের উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় একটি মোটরসাইকেল ও প্রচার মাইক ভাঙচুর করা হয়। ছিঁড়ে ফেলা হয় উভয়পক্ষের প্রার্থীর পোস্টার ও ফেস্টুন।
বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী তোফাজ্জেল হোসেন বলেন, ‘আমি বর্তমান চেয়ারম্যান। এলাকায় আমার সর্বোচ্চ জনপ্রিয়তা থাকার পরও আওয়ামী লীগের প্রার্থীর জন্য প্রচারণা চালাতে পারছি না। তাঁরা রাতের আঁধারে আমার লাগানো পোস্টার-ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলছেন। প্রচারণায় বের হলে নেতা-কর্মীদের লক্ষ্য করে হামলা চালাচ্ছেন। এভাবে কোনো নির্বাচন হতে পারে না।’
অভিযোগের তীর দিয়ে নৌকা প্রার্থীর ভাই বলে, এই নৌকা আওয়ামী লীগের নৌকা আর সেই নৌকার গায়ে হাত দিয়েছে বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।তারা আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতিকের বেনার ফেস্টুন ছিরে ফেলেছে আমরা এদের বিচার চাই। দাঙ্গা হাঙ্গামা চাই না সুষ্ঠু নিরপক্ষ নিবার্চন চাই।আরো বলেন,লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের নৌকা দেওয়ার পর থেকে কোন মারামারি হয় নাই।এই ইউনিয়নটিকে শান্তি ফিরিয়ে এনেছি।

এ বিষয় জানতে চাইলে মজিবর রহমান মোল্লা বলেন, ‘দুই পক্ষ মুখোমুখি প্রচারণায় নামায় হাতাহাতি হয়েছে। এখানে বড় ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। পোস্টার-ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ মিথ্যা। আমার কোনো নেতা-কর্মী বিদ্রোহী প্রার্থীর প্রচারণায় বাধা দেননি।’
কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইশতিয়াক আসফাক রাসেল জানান, এখন পর্যন্ত কোনো প্রার্থী লিখিত অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!