Logo
শিরোনাম :
হবিগঞ্জে পুলিশ সুপার মুরাদ আলীর পচেষ্টায় ১৩০ টাকায় পুলিশের চাকরি পেল ৪৪ জন পরীক্ষামূলকভাবে রামু-নাইক্ষ্যংছড়ি ৩৩ কেভি লাইনের বিদ্যুৎ চালু পোরশা সীমান্তে ভারতের অভ্যন্তরে এক বাংলাদেশী আটক বটিয়াঘাটা দলিল লেখক সমিতি নেতৃবৃন্দ কেন্দ্রীয় সভায় যোগদান বটিয়াঘাটা দলিল লেখক সমিতি নেতৃবৃন্দ কেন্দ্রীয় সভায় যোগদান আলীকদমে গৃহহীনদের ঘর নির্মাণে অনিয়ম-দুর্নীতি, ইউএনও কর্তৃক মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিল বাগআঁচড়ায় নৌকায় ভোট চাইলেন জেলা ছাত্রলীগ বঙ্গমাতা পরিষদের নতুন কমিটি ঘোষণা সাজেদা চৌধুরী সভাপতি ও আনিছুর রহমান সম্পাদক পাবনায় মাছ শিকার করে ৪ লাখ টাকা পুরষ্কার জিতলেন দুই ব‍্যবসায়ী সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত ১২নং ওয়ার্ড গড়তে এম.এ মনজুরের বিকল্প নেই

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে আকস্মিকভাবে মাটির নিচে বসে গেছে অসংখ্য বাড়ি

ফয়সাল আজম অপু, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মোবারকপুর ইউনিয়নের জোহরপুর এলাকায় আকস্মিকভাবে মাটির নীচে বসে গেছে প্রায় ১৫টি বাড়ি।

এছাড়া আরো প্রায় ৩০ টি বাড়ি ঝুঁকির মুখে রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোর অনেকেই অন্যের বাড়িতে আবার কেউ কেউ খোলা আকাশের নীচে বাস করছেন।

সরজমিনে দেখা গেছে, শিবগঞ্জ উপজেলার মোবারকপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের জোহরপুর গ্রামে প্রায় ১৫ টি বাড়ি মাটির নীচে বসে গেছে। কয়েকটি বাড়ির মেঝেতে ও দেয়ালে ফাটল ধরেছে। বাড়ির লোকজন জিনিসপত্র অন্যত্রে সরিয়ে নিচ্ছেন।

নীচে বসে যাওয়া বাড়ি গুলো দেখতে বিভিন্ন এলাকার হাজার হাজার নারী-পুরুষ ভিড় জমাচ্ছেন। কেউ কেউ বাড়িওয়লাদের সাহায্যের জন্য সাধারণ মানুষের নিকট হতে টাকা উত্তোলন করছে।

শ্রী তপন হলদারের স্ত্রী শ্রীমতি সুন্দরী রাণী জানান, বুধবার দুপুর একটার দিকে আমরা বাড়ির উঠানে বসে ছিলাম। হঠাৎ করে দেখি দক্ষিণ ভিটার তিনটি ছাদ দেয়া ঘর, একটি রান্না ঘর ও একটি পায়খানা নীচের দিকে বসে যাচ্ছে।

কিছুক্ষণের মধ্যে সেগুলো সম্পূর্ণ নীচে বসে গেলো। পাশের ঘরগুলোতে ফাটল ধরে গেলো। আমরা ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে দূরে সওে গেলাম। মৃত আহাদুল ইসলামের স্ত্রী জেলিসা বেগম জানান, গত ৭দিন আগে আমাদের শয়ন ঘরের মেঝেতে হঠাৎ করে ফাটল দেখতে পাই।

তখনও কোন গুরুত্ব দেইনি। পরে দেখি ঘরগুলো আস্তে আস্তে নীচের দিকে বসে যাচ্ছে। এ পর্যন্ত আমাদের তিনটি ঘর নীচে বসে গেছে। দেয়ালগুলো প্রথমে ফাটল ধরছে এবং আস্তে আস্তে ধসে যাচ্ছে।

নিচে বসে যাওয়া অন্যান্য বাড়ির মালিকারা হলো শ্রী অনিল হলদার, শ্রী রুপচান হলদার, শ্রী দয়াল হলদার, শ্রী অপুরাণ হলদার, নজরুল, ইসলাম, ডাবলু আলি, মোবারক আলি, শ্রী নিরঞ্জন হলদার। এ ঘটনায় বর্তমানে পুরো এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

শিবগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানানা, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের তালিকা তৈরী করে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে দেয়ার জন্য প্রস্তুতি চলছে।

তিনি আরো জানান, ওই গ্রামটির পাশে পাগলা নদী সংলগ্ন কানসাট ডারা (খাল) আছে। সে ডারার (খালের) হঠাৎ করে পানি শুন্য হয়ে যাওয়ায় এ ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাকিব আল রাব্বী জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকা তৈরী করা হয়েছে। দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এদিকে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ফরিদ হোসেন জানান, ঘটনাস্থলে সাধারণ মানুষের অতিরিক্ত ভিড়ে যেন কোন বিশৃংখলা না ঘটে সে জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে আলোচনা করেছি। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের জন্য সবধরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!