Logo
শিরোনাম :
সাতক্ষীরায় বিজিবি পুলিশের যৌথ অভিযানে ২৭ কেজি রৌপ্যের গহনা সহ আটক ২ লেমুছড়িতে সড়ক দূর্ঘটনায় হতাহতদের মাঝে আর্থিক সহায়তায় দিলেন ইউএনও সালমা ধারাবাহিক উন্নয়ন প্রতিবেদন-২ পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড, জনগোষ্টির ভাগ্য বদলে দিচ্ছে পালিত হলো কোয়ান্টাম মাতৃমঙ্গল সেবার বাৎসরিক আয়োজন চাঁপাইনবাবগঞ্জে অটোরিক্সার ধাক্কায় বাইসাইকেল আরোহী নিহত সারাদেশে সাংবাদিকদের তথ্য সংগ্রহ চলছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৫ মাস পর কবর থেকে তোলা হলো মোরসালিন এর লাশ অবৈধভাবে চলছে কুন্দিপুর হীরা ব্রীকস্! প্রভাব খাটিয়ে মালিকানাধীন গাছ কাটার অভিযোগ টি-২০ বিশ্বকাপের সম্পূর্ণ সূচী প্রকাশ,২৩ তারিখে ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি পাটগ্রাম মডেল প্রেস ক্লাবের নতুন কমিটির অনুমোদন

শার্শায় পৈত্রিক সম্পত্তি দখল না দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের নামে মিথ্যা মামলা

বিবিএস নিউজ ডেক্স : যশোরের শাশার্য় পিতার সম্পত্তির অংশ ওয়ারেশ সূত্রে আদালতের রায়ে পাওনা হলেও ফুফুর সম্পত্তি না দিয়ে আত্মসাৎ করতে ভাইপোরা নানামুখি ষড়যন্ত্র ও মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে । ফুফুর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা কর্মের সুবাদে বাহিরে অবস্থান করলেও আদালতে তাদের নামে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হেনস্থা সম্মানহানি সহ সামাজিক মর্যাদা ক্ষুন্ন করা হচ্ছে । প্রতিকারে প্রশাসনের প্রতি সুদৃষ্টি কামনা করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।
মামলা ও ভুক্তভোগী সূত্রে প্রকাশ, শার্শা উপজেলার ডিহি ইউনিয়নের নৈহাটী গ্রামের মৃত হাকিম আলী মোল্লার একপুত্র ফজলুল হক মোল্লা ও তিন কন্যা রশিদা বেগম, সখিরন নেছা, হাসিনা বেগম। পিতামাতার মৃত্যুর পর ওয়ারেশ সূত্রে পিতামাতার রেখে যাওয়া সব সম্পত্তির অংশীদার হন একপুত্র ও তিন কন্যা। এর মধ্যে ফজলুল হক মোল্লা ও রশিদা বেগম মারা গেলে তাদের সন্তানরা ওয়ারেশ সূত্রে সম্পত্তির অংশীদার হন। মৃত হাকিম আলী মোল্লার রেখে যাওয়া সম্পত্তি ওয়ারেশ সূত্রে তার তিনকন্যার অংশীদার গন তাদের নিজ নিজ অংশ বুঝে নিতে গেলে মৃত ফজলুল হক মোল্লার ওয়ারেশগন বাধা দেন। আপষে সম্পত্তি না পাওয়ায় মৃত হাকিম আলী মোল্লার তিনকন্যা ওয়ারেশ সূত্রে প্রাপ্ত জমির অংশ বুঝে নিতে মৃত ভাইয়ের অংশীদারদের বিবাদী করে শার্শা সহকারী জজ আদালত, যশোর ২০১৬ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ সালের দেওয়ানি মোকদ্দামা নং-৯১/০৯ করেন। মামলার রায়ে তিনকন্যা পিতামাতার সম্পত্তির ২ একর ২১ শতক জামি অংশ প্রাপ্ত হন। রায়ের পর বিবাদী গন ভিটা জমির অংশ বাদীগণকে ছাড়দিতে বিজ্ঞ জেলা জজ বাহাদুরের আদালত, যশোর দেওয়ানি আপিল নং- ৩৮/১৬ করেন । বাদীগন আপষে ভিটা জমির অংশ ১৫ শতক জমি আদালতে ছাড় দিলে বিজ্ঞ আদালত বাদীগনের পক্ষে ২ একর ০৬ শতক জমির রায় ঘোষনা করেন। এরপরও বাদীগনকে জমির দখল না দিয়ে বিবাদীগন উক্ত আদালতে পূর্বের শুরুর মামলায় বিবাদীগন পুনরায় আপত্তি জানায়। বাদী হাসিনা বেগম জানান, ওয়ারেশ সূত্রে পৈত্রিক সম্পত্তি একমাত্র মৃত ভাইয়ের ওয়ারেশদের নিকট থেকে দখল নিতে বোনদের পক্ষে আদালতে মামলা দেখভাল করছেন। তার ছেলে মেয়েরা বৈবাহিক ও কর্মের সুবাদে বাহিরে অবস্থান করেন । দুই ছেলে ও তিন মেয়ে ছুটিতে বাড়িতে বেড়াতে আসেন । এ সময়ে বিবাদী ভাইপোরা বাদী বিবাদীর বসতবাড়ি পাশাপাশি হওয়ায় আক্রোশ বসত পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে বাদীর বসতবাড়ির সিমানা ঘেষে পোল্ট্রির খামার স্থাপন কাজ শুরু করেন । এতে পরিবেশ দূষণের কথা ভেবে তারা মৌখিক ভাবে বাধা দেন। তারপরও বিবাদী ভাইপোরা খামারের কাজ অব্যহত রাখেন । বাদী এক পর্যায়ে তার নিজ বসতবাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ শুরু করেন । এতে ক্ষীপ্ত হয়ে তার ভাইপো ও তাদের পরিবার বাদীর বৃদ্ধ স্বামী বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত আলী সহ সন্তানদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং অপমান জনক কথা বার্তা বলেন । এতে বাদীর সন্তানরা প্রতিবাদ করলেও বিবাদী পুলিশের এএসআই সাইদুর রহমানের স্ত্রী পূর্বের শারীরিক সমস্যাকে পুজি করে তাদের নামে মারপিট ও শীলতাহানির অভিযোগ করে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত, শার্শা অঞ্চল, যশোর ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ ইং তারিখে পাঁচ জনের নামে মিথ্যা মামলা করেন। শুধু তাই নয় সন্তানরা ছুটি শেষে নিজ নিজ গন্তব্যে ও কর্মস্থলে ফিরে গেলেও পরবর্তীতে একই অভিযোগে আবারও উক্ত আদালতে তাদের পরিবারের ছয় জনের নামে ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখে আরও একটি মিথ্যা মামলা করেন। বাদী হাসিনা বেগম ও তার পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ জমির দখল না দিয়ে আত্মসাৎ করতে বিবাদীগন অন্যের প্ররোচনায় একের পর এক মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে মুক্তিযোদ্ধা এই পরিবারের সদস্যদের হয়রানি ও সামাজিক মর্যাদা ক্ষুন্ন করা হচ্ছে । বিষয়টি প্রতিকারে প্রশাসনের প্রতি সুদৃষ্টি কামনা করেছেন ভূক্তভোগী পরিবার ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By ThemesWala.Com
error: Content is protected !!